জেএমআই চেয়ারম্যান রাজ্জাকের জামিন হাইকোর্টে বহাল

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:০০ পিএম, ১৯ জানুয়ারি ২০২১

নকল এন-৯৫ মাস্ক সরবরাহ করে চিকিৎসক, নার্সসহ স্বাস্থ্যকর্মীদের মৃত্যুর ঝুঁকিতে ঠেলে দেয়ার ঘটনায় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা মামলায় জেএমআই গ্রুপের চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাকের জামিন বহাল রেখেছেন হাইকোর্ট। আবদুর রাজ্জাকের বিরুদ্ধে বিচারিক (নিম্ন) আদালতে মামলার বিচার শেষ না হওয়া পর্যন্ত তার জামিন বহাল থাকবে বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) হাইকোর্টের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি মহিউদ্দিন শামীমের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল বেঞ্চে বিষয়টি শুনানি হয়।

আদালতে দুদকের পক্ষে শুনানি করেন মো. খুরশীদ আলম খান। আবদুর রাজ্জাকের পক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট মো. খলিলুল রহমান (এম কে রহমান)। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক। তার সঙ্গে ছিলেন সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মাহজাবীন রব্বানী দীপা ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল আন্না খানম কলি।

বিচারিক (নিম্ন) আদালত থেকে আবদুর রাজ্জাককে দেয়া জামিন বাতিল চেয়ে দুদক হাইকোর্টে আবেদন করেছিল। ওই আবেদন শুনানি নিয়ে এই আদেশ দেন আদালত।

আদেশ বলা হয়েছে, বিচারিক আদালতের অনুমতি ছাড়া তিনি দেশের বাইরে যেতে পারবেন না। মামলাটি ছয় মাসের মধ্যে তদন্ত সম্পন্ন করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। তবে, জামিনের অপব্যবহার করা হলে বিচারিক আদালত জামিন বাতিল করতে পারবে।

ঢাকার বিশেষ জজ আদালত ২০২০ সালের ১৫ অক্টোবর আবদুর রাজ্জাককে জামিন দেয়। এই জামিন বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে রিভিশন আবেদন করে দুদক। এ আবেদনে আবদুর রাজ্জাকের জামিন কেন বাতিল করা হবে না তা জানতে চেয়ে ওই বছরের ৩০ নভেম্বর রুল জারি করেন হাইকোর্ট। এই রুলের ওপর শুনানি শেষে রুল খারিজ করে দেয়া হয়েছে।

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণের প্রেক্ষাপটে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষার জন্য ওষুধ প্রশাসন অধিদফতর গতবছর মার্চে সিএমএসডি ৫০ লাখ এন-৯৫ মাস্ক সরবরাহের দায়িত্ব দেয় জেএমআই হাসপাতাল রিক্যুইজিট ম্যানুফ্যাকচারিং লিমিটেডকে। এরপর জেএমআই বিভিন্ন হাসপাতাল ও ক্লিনিকে ২০ হাজার ৬১০টি মাস্ক সরবরাহ করে। কিন্তু এসব মাস্ক নকল বলে ধরা পড়ে। ফলে চিকিৎসক ও নার্সসহ স্বাস্থ্যকর্মীদের জীবন ঝুঁকির মধ্যে পড়ে।

এ অবস্থায় দুদক আবদুর রাজ্জাকসহ সাতজনের বিরুদ্ধে দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় ঢাকা-১-এ ২০২০ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর মামলা করে। সেদিনই আবদুর রাজ্জাককে সেগুনবাগিচা থেকে গ্রেফতার করা হয়।

এফএইচ/এমআরআর/এআরএ/এমকেএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]