আল জাজিরার প্রতিবেদন এতদিন বন্ধ করল না কেন বিটিআরসি : হাইকোর্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:১৭ পিএম, ১০ ফেব্রুয়ারি ২০২১

কাতার ভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল আল জাজিরার সম্প্রচার বন্ধ এবং বাংলাদেশকে নিয়ে করা প্রতিবেদন ফেসবুক ও ইউটিউব থেকে সরানোর বিষয়ে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের (বিটিআরসি) ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন হাইকোর্ট।

এ সংক্রান্ত শুনানি নিয়ে বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) ক্ষোভ প্রকাশ করে আদালত বলেন, প্রকাশের ১০ দিন পর সেই ভিডিও বন্ধ করা, না করা সমান বলেও মন্তব্য করেন হাইকোর্ট।

আলোচিত ভিডিও প্রতিবেদনটি ইউটিউব, ফেসবুকসহ সব ধরনের অনলাইন প্ল্যাটফর্ম থেকে সরিয়ে দেয়ার নির্দেশনা সংক্রান্ত রিটের শুনানি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) এসব কথা বলেন হাইকোর্টের বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হাসান মোল্লার সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ।

আদালতের প্রশ্ন, বিশ্বের কোটি কোটি ভিউয়ার এরই মধ্যে আল জাজিরার প্রতিবেদনটি দেখেছেন। বিটিআরসি এতদিন কী করল, আপত্তিকর কিছু সম্প্রচার বন্ধের বিটিআরসির ক্ষমতা থাকা সত্ত্বেও কেন আদালতের কাঁধের ওপর বন্দুক রাখা হচ্ছে? এগুলো এখন বন্ধ করা আর না করা সমান বলেও মন্তব্য করেন হাইকোর্ট।

শুনানিতে রিটকারী আইনজীবী এমডি এনামুল কবির ইমন আল জাজিরার প্রচারিত ওই ভিডিও কন্টেন্টটি অনলাইন প্ল্যাটফর্ম থেকে অপসারণে বিটিআরসির নিষ্ক্রিয়তা রয়েছে বলে দাবি করেন। তবে বিটিআরসির আইনজীবী খন্দকার রেজা-ই-রাকিব হাইকোর্টকে বলেন, ‘মাই লর্ড, আমরা কোনো টেলিকাস্ট বন্ধ করতে বা ওটিটি প্ল্যাটফর্ম থেকে ভিডিও সরাসরি সরাতে পারি না। তবে আদালত কোনো আদেশ দিলে আমার ভিডিও কন্টেন্টগুলো সরানোর জন্য ওটিটি প্ল্যাটফর্ম বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের সাথে যোগাযোগ করি। সেক্ষেত্রে তার পদক্ষেপ নেন।’

এ পর্যায়ে রাষ্ট্র ও অন্যান্যপক্ষসহ সবার বক্তব্য শুনে আদালত এই রিট এবং আল জাজিরার প্রশ্নে অভিমত শোনার জন্য ছয় জন অ্যামিকাস কিউরি নিয়োগ দিয়ে আগামী ১৫ ফেব্রুয়ারি তাদের বক্তব্য শোনার দিন ঠিক করেন।

আদালত কোন বিষয়ে আদালত অ্যামিকাস কিউরিদের বক্তব্য শুনবেন জানতে চাইলে রিটকারি আইনজীবী মো. এনামুল কবির ইমন বলেন, ‘ব্যক্তিগতভাবে (ইনপার্সন) আমার করা এই রিটের মেইটেনঅ্যাবিলিটি আছে কিনা? লিগ্যাল নোটিশ না দিয়ে সরাসরি করা এই রিট শুনানি হতে পারে কিনা? বিদেশি চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করার আইনি এখতিয়ার আছে রয়েছে কিনা?

আদালতের উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি আরও বলেন, আল জাজিরা টেলিভিশনে সম্প্রচার হওয়ার এতদিন পর এসে ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টার্স মেন’ ভিডিও কন্টেন্টটি বন্ধ করা, না করা সমান কথা বলে মন্তব্য করেছেন।

এর আগে গত ১ ফেব্রুয়ারি আল জাজিরা টেলিভিশন চ্যানেলে প্রচারিত ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টার্স মেন’ প্রতিবেদনটি ইউটিউব, টুইটার, ফেসবুকসহ সব ধরনের অনলাইন প্ল্যাটফর্ম থেকে অপসারণের নির্দেশনা চেয়ে সোমবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী এমডি এনামুল কবির ইমন হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এই রিট করেন। রিটে বাংলাদেশে আল জাজিরার সম্প্রচার বন্ধে নির্দেশনা চাওয়া হয়। ডাক ও টেলিযোগাযোগ সচিব, তথ্য ও প্রযুক্তি সচিব, বিটিআরসির চেয়ারম্যান, পুলিশ মহাপরিদর্শককে এই রিটে বিবাদী করা হয়েছে। সেটির ওপর শুনানি হয়েছে আজ।

এফএইচ/এসজে/এসএস/এমকেএইচ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]