ধর্ষণের শিকার নারী-শিশুর পুনর্বাসন নিয়ে হাইকোর্টের রুল

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:১৫ পিএম, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১
ফাইল ছবি

ধর্ষণের শিকার নারী ও শিশুদের সমাজে পুনর্বাসনের নির্দেশ কেন দেয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। সেইসঙ্গে প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে ক্ষতিপূরণের জন্য একটি বিধিমালা প্রণয়ন করার নির্দেশ কেন দেয়া হবে না রুলে তাও জানতে চাওয়া হয়ছে।

আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব, নারী ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব, সরকারের আইনগত সহায়তা সংস্থা (লিগ্যাল এইড) এর চেয়ারম্যান, পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি), পুলিশের খুলনা, রংপুর মহানগরের কমিশনার, জেলা পুলিশ সুপারসহ (এসপি) সরকারের সংশ্লিষ্ট ১৫ জনকে এই রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

এ সংক্রান্ত বিষয়ে শুনানি নিয়ে বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) হাইকোর্টের বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল বেঞ্চ এই আদেশ দেন। ব্যারিস্টার মো. আব্দুল হালিম আদেশের বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন।

আদালতে আজ রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী ব্যারিস্টার আব্দুল হালিম, সঙ্গে ছিলেন অ্যাডভোকেট ইশরাত হাসান। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুর্টি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার নওরোজ মো. রাসেল।

তিনি জানান, এর আগে বিভিন্ন সময় ধর্ষণের ঘটনা নিয়ে গণমাধ্যমে প্রকাশিত তিনটি পৃথক প্রতিবেদন সংযুক্ত করে গত ২ জানুয়ারি হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন চিলড্রেন চ্যারিটি ফাউন্ডেশন নামে একটি সংগঠন।

আইনজীবী আব্দুল হালিম বলেন, ‘ধর্ষণের মামলায় ৯৭ শতাংশ আসামি খালাস হয়ে যায়। তার মানে কি ৯৭ শতাংশ ধর্ষণ হয়নি? এই খালাসের কারণ হলো রাষ্ট্র যথেষ্ট সাক্ষ্য-প্রমাণ হাজির করতে ব্যর্থ হয়েছে। এর দায়ভার ভিকটিম কেন নেবে। কেননা তার আত্মমর্যাদা রয়েছে। শিশুটির লেখাপড়া ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। এসব শিশু স্কুলে পর্যন্ত যেতে পারছে না। তাহলে সে কোথায় যাবে। এখানেই হলো রাষ্ট্রের দায়িত্ব। সারা পৃথিবীতে ধর্ষণের শিকার ভিকটিমদের পুনর্বাসনের বিধান রয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘ভারতের সুপ্রিমকোর্ট একটি ধর্ষণের ঘটনায় ১০ লাখ রুপি ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে সেটি আমরা নজির হিসেবে দিয়েছি। ‘শিশু মাইশাকে যৌন নিপীড়নের চেষ্টার পর হত্যা করে ডোবায় ফেলেন প্রতিবেশি।’ ‘তিন বছরেও স্বাভাবিক হতে পারেনি সেই পূজা।’ ‘স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগে পুলিশ সদস্য গ্রেফতার’ শিরোনামে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হয়। ওইসব প্রতিবেদন সংযুক্ত করে হাইকোর্টে রিটটি দায়ের করা হয়।’

ওই রিটের শুনানি নিয়ে আদালত আজ শিশু ধর্ষণের মামলা প্রমাণিত হোক বা না হোক ধর্ষণের শিকার শিশুকে পুনর্বাসন করতে প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রে ক্ষতিপূরণ দিতে একটি বিধিমালা তৈরি করতে সরকারকে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

এফএইচ/ইএ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]