চট্টগ্রামের ইটভাটা মালিক সমিতির ৬ জনকে লিগ্যাল নোটিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:২৬ এএম, ০১ মার্চ ২০২১
ফাইল ছবি

চট্টগ্রামের সব অবৈধ ইটভাটা বন্ধে হাইকোর্টের নির্দেশ থাকার পরও ওই আদেশ বাস্তবায়নে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির অভিযোগে চট্টগ্রামের ইটভাটা মালিক সমিতির ছয়জনকে আইনি (লিগ্যাল) নোটিশ পাঠিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট মনজিল মোরশেদ।

যাদের প্রতি নোটিশ পাঠানো হয়েছে তারা হলেন- চট্টগ্রাম জেলা ইটভাটা মালিক সমিতির আহ্বায়ক ইসমাইল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সেকান্দর মিয়া, লোহাগড়া ব্রিকফিল্ড মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও আলহাজ ছরওয়ার কোম্পানির প্রেসিডেন্ট আলহাজ আবিদ হাসান মানু, পশ্চিম সাতকানিয়া ইটভাটা মালিক সমিতি প্রেসিডেন্ট শাহ আলম ও সেক্রেটারি মো. হাসান লিটন কমিশনার।

মানবাধিকার ও পরিবেশবাদী সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের (এইচআরপিবি) পক্ষে রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) এ নোটিশ পাঠানো হয়েছে।

নোটিশে বলা হয়েছে, হাইকোর্টের রায়ের পর তা প্রত্যাহারের দাবিতে ভাটার ইট বিক্রি বন্ধ রাখাসহ যেসব কর্মসূচি গ্রহণ করা হচ্ছে তা আদালত অবমাননার শামিল। তাই নোটিশ পাওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ওইসব কর্মসূচি প্রত্যাহার না করলে আদালত অবমাননার আবেদন করা হবে বলে পাঠানো নোটিশে বলা হয়েছে।

চট্টগ্রামের সব অবৈধ ইটভাটা বন্ধ ও উচ্ছেদের জন্য গতবছর ১৪ ডিসেম্বর, চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারি ও ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যায়ক্রমে আদেশ দেন হাইকোর্ট। চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক (ডিসি) ও পরিবেশ অধিদফতরের পরিচালককে এই আদেশ বাস্তবায়ন জরার জন্য বলা হয়েছে। আগামী ১৪ মার্চ পরবর্তী আদেশের জন্য দিন ধার্য রয়েছে।

এর মধ্যে প্রথমদফায় গত বছর ১৪ ডিসেম্বর আদেশ দেয়ার পর হাইকোর্টের আদেশের বিরুদ্ধে ১০১ জন ইটভাটার মালিক ছয়টি আপিল দাখিল করেন। এসব আবেদনে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চাওয়া হয়। কিন্তু সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ কোনো স্থগিতাদেশ দেননি। এরপর চলতি বছরের ৩১ জানুয়ারি ও ২৫ ফেব্রুয়ারি আরও দুই দফা আদেশ দেন হাইকোর্ট। প্রশাসন যাতে কোনো পদক্ষেপ নিতে না পারে সেজন্য ইটভাটা মালিক সমিতি বিভিন্নভাবে চাপ সৃষ্টি করছে এবং আদেশ বাস্তবায়নে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করছে। যা আদালত অবমাননার শামিল এবং শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলে নোটিশে উল্লেখ করা হয়।

এফএইচ/এমআরআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]