রাশেদ চিশতীর জামিন বাতিলে হাইকোর্টের শুনানি পেছাল

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:৪০ পিএম, ০৮ মার্চ ২০২১

মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনের মামলাসহ চারটি মামলায় ফারমার্স ব্যাংকের নিরীক্ষা কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান মাহবুবুল হক চিশতীর ছেলে রাশেদুল হক চিশতীকে দেয়া জামিন বাতিল চেয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা আবেদনের ওপর শুনানি আরও দুই সপ্তাহ পিছিয়ে দিন ধার্য করেছেন হাইকোর্ট।

এ বিষয়ে করা আবেদনের শুনানিতে দুই সপ্তাহ সময় চেয়ে দুদকের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার (৮ মার্চ) হাইকোর্টের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি মহি উদ্দীন শামীমের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল বেঞ্চ এ আদেশ দেন। সংশ্লিষ্ট বেঞ্চের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন।

আদাতে এদিন দুদকের পক্ষে ছিলেন আইনজীবী ছিলেন মো. খুরশীদ আলম খান। রাষ্ট্রপক্ষের শুনানিতে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিনউদ্দিন মানিক, সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল আন্না খানম কলি।

এদিকে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইনজীবী মোহাম্মদ খুরশীদ আলম খান জাগো নিউজকে বলেন, ‘রাশেদ চিশতীর জামিন বাতিলে চেয়ে ৪টি রিভিশন আবেদনের ওপর শুনানির জন্য হাইকোর্টের কজলিস্টে রয়েছে।’

সে হিসেবে ওই মামলায় জামিন মঞ্জুর করে নিম্ন আদালতের দেয়া আদেশের বিরুদ্ধে দুদকের করা রিভিশন আবেদনের শুনানি হওয়ার কথা আজ।

আইনজীবীদের তথ্যমতে, রাশেদ চিশতীর বিরুদ্ধে পাঁচটি মামলা ছিল। এর মধ্যে গত বছর ১৮ ও ১৯ মে ঢাকার আদালত থেকে চারটি মামলায় জামিন পান তিনি। অন্য মামলায় টাঙ্গাইলের দায়রা আদালত থেকে ২৭ মে জামিন পান তিনি।

পাঁচ মামলায় রাশেদ চিশতীর জামিনের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে পৃথক আবেদন করে দুদক। এর পরিপ্রেক্ষিতে গত ২৮ মে একটি মামলায় হাইকোর্ট রাশেদ চিশতীর জামিন দুদকের আপিল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত স্থগিত করেন। অপর তিনটি মামলার ক্ষেত্রে হাইকোর্ট শর্তসাপেক্ষে রাশেদ চিশতীকে নিম্ন আদালতের দেয়া জামিন বহাল রাখেন।

দুদকের আইনজীবী খুরশিদ আলম খান বলেন, ‘এর আগে সর্বশেষ গত ২৬ জানুয়ারি রাশেদুল হক চিশতীর এক মামলায় জামিন বাতিল চেয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) করা আবেদন খারিজ করে দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। ফলে নিম্ন আদালতের এক মামলায় রাশেদুল হক চিশতিকে দেয়া জামিনের রায় হাইকোর্টেও বহাল ছিল। পরে রাশেদুল হক চিশতীকে ওই এক মামলায় হাইকোর্টের দেয়া জামিন বাতিল চেয়ে আপিল আবেদন করেন দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।’

সেটি শুনানি নিয়ে গত (১ ফেব্রুয়ারি) আপিল বিভাগ চার সপ্তাহের জন্য তার জামিন স্থগিত করেন। সেইসঙ্গে নিয়মিত আপিল দায়ের করতে বলেছেন।

প্রসঙ্গত, ফারমার্স ব্যাংকের বকশীগঞ্জ শাখা থেকে ৯ কোটি ২৮ লাখ ৯২ হাজার ৫০০ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে ২০১৮ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর টাঙ্গাইল সদর থানায় রাশেদ চিশতীসহ তিনজনের বিরুদ্ধে একটি মামলাটি করে দুদক। এই মামলায় ২৭ মে টাঙ্গাইলের বিশেষ জজ আদালত থেকে জামিন পান তিনি।

আইনজীবীরা জানান, ফারমার্স ব্যাংকে জালিয়াতির ঘটনায় পৃথক মামলা করে দুদক। এর মধ্যে ১৫৯ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ব্যাংকটির নিরীক্ষা কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান মাহবুবুল হক চিশতী, তার স্ত্রী রুজী চিশতী ও ছেলে রাশেদুল হক চিশতীসহ সাতজনের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালের ১০ এপ্রিল গুলশান থানায় একটি মামলা করে দুদক।

এই মামলায় ১৯ মে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৬ থেকে জামিন পান তিনি। এর বিরুদ্ধে দুদক হাইকোর্টে আবেদন করে, যার পরিপ্রেক্ষিতে ২০ মে প্রথমে হাইকোর্টের অপর বেঞ্চ ২৮ মে পর্যন্ত রাশেদ চিশতীর জামিন স্থগিত করেন। পরে ২৮ মে আপিল শুনানি না হওয়া পর্যন্ত রাশেদুল চিশতীর জামিন স্থগিত করা হয়।

এ ছাড়া জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে, মাহবুবুল হক চিশতীকে আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনে সহযোগিতার অভিযোগসহ মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ ও দুদক আইনে রাশেদ চিশতীর বিরুদ্ধে পৃথক তিনটি মামলা রয়েছে।

এফএইচ/এসএস/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]