অনলাইন ক্যাসিনো : চার আসামি তিনদিনের রিমান্ডে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৪১ পিএম, ১১ মে ২০২১

ভার্চুয়াল কারেন্সি ব্যবহার করে ক্যাসিনো প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে অনলাইন জুয়া পরিচালনার অভিযোগে গ্রেফতার চারজনের তিনদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। রিমান্ডে নেয়া আসামিরা হলেন- মো. শাহিনুর রহমান, দীপ্ত রায় প্রান্ত, মো. গোলাম মোস্তফা ও মো. রাকিবুল হাসান।

মঙ্গলবার (১১ মে) আসামিদের ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করা হয়। এরপর মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে প্রত্যেকের ১০ দিন করে রিমান্ডে নিতে আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম মো. মইনুল ইসলাম প্রত্যেকের তিনদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে গতকাল সোমবার রাজধানীর খিলক্ষেত থানার নিকুঞ্জ এলাকা থেকে তাদেরকে সিটিটিসির ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম বিভাগের ইকোনমিক ক্রাইম অ্যান্ড হিউম্যান ট্রাফিকিং টিম গ্রেফতার করে। এসময় তাদের কাছ থেকে অনলাইন জুয়ায় ব্যবহৃত ল্যাপটপ, আইপ্যাড, একাধিক স্মার্ট ফোন, হার্ডডিস্ক, পাসপোর্ট এবং জাতীয় পরিচয়পত্র উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় খিলক্ষেত থানায় তাদের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়।

মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, গ্রেফতার শাহিনুর ক্যাসিনো প্ল্যাটফর্মের বিভিন্ন ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অনলাইন জুয়া পরিচালনাসহ অর্থ লেনদেন করে এবং পেমেন্ট গেটওয়ে melbet ও Linebet এর সরাসরি এজেন্ট। গ্রেফতার দীপ্ত রায়, মোস্তফা ও রাকিবুল movcash (1xbet) এর মাধ্যমে অনলাইন জুয়া পরিচালনা করতেন। তারা প্রত্যেকেই বিভিন্ন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যয়নরত ছাত্র। আসামিরা অনলাইনে বিভিন্ন ওয়েবসাইটে অবৈধ জুয়া পরিচালনার ভার্চুয়াল কারেন্সি আদান-প্রদান এবং ডিপোজিট-এনক্যাশ করতেন।

এরূপ অবৈধ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য তারা দেশ-বিদেশের বিভিন্ন এজেন্টের নিকট হতে কারেন্সি সংগ্রহ করেন এবং দেশব্যাপী অনলাইন জুয়াড়িদের সরবরাহ করতেন। তাদের গ্রাহকদের সঙ্গে এই কারেন্সি বিক্রয় এবং এনক্যাশের জন্য জয়পুরহাটের আক্কেলপুর, টাঙ্গাইল এবং ঢাকাসহ বিভিন্ন এলাকার বিকাশ, নগদ ও রকেট এজেন্ট নম্বর ব্যবহার করতেন।

জেএ/ইএ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]