ইফতার-ঈদ উপহারের জন্য শ্বশুরবাড়িতে নারী নির্যাতন, যা বললেন সুমন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:০৭ পিএম, ১১ মে ২০২১ | আপডেট: ০৯:১৯ পিএম, ১১ মে ২০২১

সিলেটের ওসমানীনগরে শ্বশুরবাড়িতে ইফতার কম দেয়ার ঘটনায় গৃহবধূ ও তার বাবাকে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। এরপর ওই গৃহবধূ আত্মহত্যা করেন বলে পরিবার জানায়।

এ ঘটনার পর সোমবার (১০ মে) লাইভে আসেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন। তিনি এর সুষ্ঠু বিচার ও আইনি পদক্ষেপ যেন যথাযথভাবে পালন করা হয় সে বিষয়ে মতামত দেন।

লাইভের শুরুতেই তিনি ধনী পরিবারের মেয়ের শ্বশুরবাড়িতে ইফতার পাঠানো নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। বলেন, শ্বশুরবাড়িতে ইফতার কম দেয়ায়, ওই নারীর ওপর নির্যাতন চলে। এতে অপমান সইতে না পেরে টিনের ঘরের নিচে বাথরুমে আত্মহত্যা করেন তিনি।

এ সময় উপস্থিত এক সালিশকারী এবং সংশ্লিষ্ট থানা পুলিশের সঙ্গে কথা বলেন ব্যারিস্টার সুমন। তাদের কাছ থেকে ঘটনার কথা শোনেন।

ব্যারিস্টার সুমন বলেন, ‘এ ঘটনা জানতে পেরে আমি সেই আড়াইশ কিলোমিটার দূর থেকে এখানে এসেছি। আপনারা যারা বড়লোক আছেন, তাদের মেয়ের বাড়িতে ইফতার একটু কম দিতে পারেন না? আপনাদের মেয়েদের বাড়িতে ইফতার পাঠানো দেখে গরিব-অসহায় মেয়ের বাবাদের বাড়ি থেকে ইফতার কম দেয়াই নারীরা নির্যাতিত হয়।’

তিনি বলেন, ‘সিলেটের ওসমানীনগরে এই নারীকে আগে থেকে নির্যাতন করা হতো। এখন আবার ইফতারির জন্য নির্যাতন করা হয়েছে। সেই অপমান সইতে না পেরে তিনি আত্মহত্যা করেন।’

ইফতারি ও জামা-কাপড় না পাওয়ায় রশি দিয়ে বেঁধে স্ত্রী ও বৃদ্ধ শ্বশুরকে নির্যাতন করার অভিযোগ ওঠে মামুন মিয়া (২৬) এবং তার পরিবারের লোকজনের বিরুদ্ধে।

রোববার (৯ মে) ওসমানীনগরের সাদিপুরের চরসম্মানপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর ওই নারীর স্বামী ও শাশুড়িকে আটক করে পুলিশ।

গৃহবধূ জায়েদার ভাই আব্দুল তাহিদ বলেন, ‘এক বছর আগে মামুনের সঙ্গে তার বোনের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই নানা কারণে তাদের মধ্যে কলহ লেগে ছিল। এ নিয়ে একাধিকবার গ্রাম্য সালিশে মীমাংসাও হয়। ইফতারি কম দেয়ায় রোববার তার বোনকে বেঁধে মারধর করা হয়। এ খবর পেয়ে তার বাবা সেখানে গেলে তাকেও মারধর করা হয়।’

সাদিপুর ২ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য স্বপন মিয়া বলেন, ‘তার ওয়ার্ডের চরসম্মানপুর গ্রামে স্বামী ও তার পরিবার কর্তৃক ইফতারির জন্য গৃহবধূকে নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে বলে জানতে পেরেছি।’

ওসমানীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শ্যামল বণিক জানান, এ ঘটনায় থানায় একটি লিখিত অভিযোগ এসেছে। ঘটনার তদন্তে একজন উপ-পরিদর্শককে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পেলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এফএইচ/জেডএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]