বাংলাদেশের মানুষের ভালোবাসায় বিস্মিত ফিলিস্তিনের রাষ্ট্রদূত

মুহাম্মদ ফজলুল হক
মুহাম্মদ ফজলুল হক মুহাম্মদ ফজলুল হক , নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:১০ পিএম, ১৮ মে ২০২১ | আপডেট: ০৯:১৭ পিএম, ১৮ মে ২০২১

বাংলাদেশের মানুষের ভালোবাসা দেখে ঢাকায় নিযুক্ত ফিলিস্তিনের রাষ্ট্রদূত ইউসুফ এস ওয়াই রামাদান অনেকটাই বিস্মিত বলে জানিয়েছেন নবীন সমাজসেবক ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার আহসান ভুইয়া। এ ছাড়া বাংলাদেশ থেকে ফিলিস্তিনে অর্থ সহায়তা করার জন্য একটি নগদ একাউন্ট খোলা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

মঙ্গলবার (১৮ মে) ঢাকায় নিযুক্ত ফিলিস্তিনের রাষ্ট্রদূত ইউসুফ এস ওয়াই রামাদানের সঙ্গে দেখা করার পর ব্যারিস্টার আহসান ভুইয়া ফেসবুকে এসব তথ্য জানান। সাক্ষাৎকালে ফিলিস্তিনিদের সহযোগিতার ব্যাপারে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা হয়েছে বলে জানান তিনি। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‌‘পরিবর্তন করি’র মহাসচিব আনুষা আনোয়ার। ব্যারিস্টার আহসান ভুইয়া এ সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ব্যারিস্টার আহসান ভুইয়া জাগো নিউজকে বলেন, ‘আজ দুপুরে আমি ঢাকায় অবস্থিত ফিলিস্তিনি দূতাবাসে গিয়েছিলাম। সেখানে রাষ্ট্রদূত ইউসুফ এস ওয়াই রামাদানের সঙ্গে আমার সাক্ষাত হয়েছে। তিনি জানান, বাংলাদেশ থেকে ফিলিস্তিনিদের সহায়তা করার জন্য বিকাশে অ্যাকাউন্ট খুলেছেন। তাতে যে পরিমাণ সাহায্য এসেছে তাতে বিকাশের লিমিট ক্রস করেছে। তাই তাকে একটি নগদ অ্যাকউন্ট খুলে দেয়ার ব্যবস্থা করেছি। এসময় আমি খন্দকার মোহাম্মদ সোলায়মান ওরফে (সোলায়মান সুখন) এবং মিশকাত সৈকতের সঙ্গেও কথা বলেছি।’

ব্যারিস্টার আহসান ভুইয়া বলেন, ‘এর আগে বাংলাদেশের মানুষের দাবির প্রেক্ষাপটে বিকাশে একাউন্ট খুলেছেন রাষ্ট্রদূত ইউসুফ এস ওয়াই রামাদান। তিনি জানিয়েছেন, বাংলাদেশের মানুষের ভালোবাসা দেখে আমার খুব ভালো লেগেছে। তিনি জানতেন বাংলাদেশের মানুষ ফিলিস্তিনিদের ভালোবাসেন, কিন্তু এতটা ভালোবাসেন তা তিনি ভাবতে পারেননি।’

তিনি আরও বলেন, ‘ফিলিস্তিনি দূতাবাস থেকে যে বিকাশ অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে তার লিমিটি বাড়ানোর জন্য কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলেছি। এ ছাড়া নগদ অ্যাকাউন্ট খোলার ব্যবস্থার পাশাপাশি আমাদের একটি বিকাশ নম্বর দিয়ে এসেছি, যাতে ফিলিস্তিনিদের সহায়তার জন্য টাকা পাঠানো যাবে। ’

প্রসঙ্গত, ফিলিস্তিনের হেবরন শহরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে একটি সড়ক এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে একটি বাড়ির নামকরণ করা হয়েছে। গত ১২ মে ঢাকায় নিযুক্ত ফিলিস্তিনের রাষ্ট্রদূত ইউসুফ এস ওয়াই রামাদন সাংবাদিকদের এমন তথ্য জানিয়েছেন।

jagonews24

তিনি জানান, ফিলিস্তিনের জনগণ বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে শ্রদ্ধা করেন এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভালোবাসেন। এ কারণে পশ্চিম তীরের হেবরন শহরে তাদের নামে সড়ক ও বাড়ির নামকরণ করা হয়েছে।

এ ছাড়াও গাজায় ইসরায়েলি হামলা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্বেগ ও ফিলিস্তিনিদের প্রতি অবিচল সমর্থন প্রকাশ করায় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন তিনি। গত ১২ মে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসকে চিঠি লেখেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। একই দিন পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন প্রধানমন্ত্রীর চিঠি ফিলিস্তিনি রাষ্ট্রদূতকে পৌঁছে দেন। তখন রাষ্ট্রদূত প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে এসব কথা বলেন।

এ বিষয়ে পররাষ্ট্রসচিব বলেন, ‘ওআইসি খুব শিগগিরই সদস্য দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের নিয়ে বৈঠকে বসতে পারে। ওআইসি যৌথ সভার মাধ্যমে ফিলিস্তিনের চলমান সমস্যা সমাধানে কার্যকরী সমাধান বের করবে।’

রাষ্ট্রদূত ইউসেফ এস ওয়াই রমজান বলেন, ‘ফিলিস্তিন সংকটে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অব্যাহত সমর্থনে ফিলিস্তিনিরা তাকে ভালবাসেন এবং শ্রদ্ধা করেন।’ ফিলিস্তিনি জনগণের প্রতি বাংলাদেশে মানুষের সমর্থন এবং সহানুভূতি প্রকাশকে সাধুবাদ জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জেরুজালেমে মুসলমানদের পবিত্র মসজিদ আল-আকসা প্রাঙ্গণে সম্প্রতি ইসরায়েলের হামলার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করে বিশ্বের যেকোনো স্থানে এ ধরনের জঘন্যতম হামলা বন্ধে বিশ্ব সম্প্রদায়কে স্থায়ী পদক্ষেপ নেয়ারও আহ্বান জানিয়েছেন।

ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের কাছে পাঠানো এক চিঠিতে শেখ হাসিনা লিখেছেন, ‘আমরা হামলায় হতাহতদের পরিবারের প্রতি গভীর শোক এবং আমাদের ভ্রাতৃপ্রতিম ফিলিস্তিনি জনগণের প্রতি সমবেদনা জানাচ্ছি।’

তিনি বলেন, ‘আমরা দ্ব্যর্থহীন ভাষায় এই কাপুরোষচিত হামলার তীব্র নিন্দা জানাই। আমরা ফিলিস্তিনসহ বিশ্বের যেকোনো দেশে এ ধরনের জঘন্যতম হামলার অবসানে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে টেকসই পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।’ এরপর থেকে সরকারের মন্ত্রীবর্গ ও অন্যান্য দলীয় লোকজন এবং দেশের সকল জনগণ এর প্রতিবাদ অব্যাহত রাখেন।

এফএইচ/ইএ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]