চট্টগ্রামে তেলের ড্রামে কোকেন : আসামির জামিন বাতিল

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৫২ পিএম, ০২ জুন ২০২১
ফাইল ছবি

চট্টগ্রাম বন্দরে তেলের ড্রামে তরল কোকেন আমদানির ঘটনায় করা মামলার আসামি সিকিউরিটিজ প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা মো. মেহেদি আলমকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন বাতিল করেছেন আপিল বিভাগ।

বুধবার (২ জুন) প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে আপিল বিভাগ এ আদেশ দেন। আদালতে আজ শুনানিতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ মোহাম্মদ মোরশেদ।

এর আগে ২০১৮ সালের ২৬ নভেম্বর মেহেদী আলমকে জামিন দেন হাইকোর্ট। রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনে ওই বছরের ২ ডিসেম্বর চেম্বারজজ আদালত হাইকোর্টের জামিন স্থগিত করে দেন। ফলে মেহেদী আলমের কারামুক্তি হয়নি। এরই ধারাবাহিকতায় রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের ওপর আজ আপিল বিভাগে শুনানি হয়। শুনানি শেষে আপিল বিভাগ জামিন স্থগিতের আদেশ বহাল রাখেন।

গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে ২০১৫ সালের ৭ জুন চট্টগ্রাম বন্দরে থাকা সূর্যমুখী তেলের কনটেইনারে তরল কোকেন পায় শুল্ক গোয়েন্দা অধিদফতর। চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জের আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান খানজাহান আলী লিমিটেডের নামে এর চালান আসে।

উরুগুয়ের মন্টিভিডিও বন্দর থেকে চালানটি চট্টগ্রাম বন্দরে পৌঁছায়। সূর্যমুখী তেল আমদানির কথা বলে তেলের সেই ১০৭টি ড্রামেই কোকেন পাওয়া যায়। এ ঘটনায় ওই বছরের ২৮ জুন বন্দর থানায় খানজাহান আলী লিমিটেডের মালিক নূর মোহাম্মদ ও প্রাইম হ্যাচারির ব্যবস্থাপক গোলাম মোস্তফা সোহেলকে আসামি করে মাদক আইনে একটি মামলা করে পুলিশ।

তদন্ত শেষে একই বছরের ১৯ নভেম্বর পুলিশ আটজনকে আসামি করে অভিযোগপত্র দেয়। কিন্তু আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানের মালিক নূর মোহাম্মদ ও তার ভাই মোস্তাক আহমেদের নাম বাদ দেয়ায় আদালত ওই অভিযোগপত্র গ্রহণ না করে র্যাবকে অধিকতর তদন্তের নির্দেশ দেয়। তদন্ত শেষে ২০১৭ সালের ৩ এপ্রিল নূর মোহাম্মদসহ ১০ জনকে আসামি করে সম্পূরক অভিযোগপত্র দেয় র্যাব-৭।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন- লন্ডনে অবস্থানরত বকুল মিয়া ও ফজলুর রহমান, কসকো শিপিং লাইনের ম্যানেজার এ কে এম আমজাদ, তৈরি পোশাক রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান মণ্ডল গ্রুপের বাণিজ্যিক নির্বাহী আতিকুর রহমান, সিকিউরিটিজ প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা মো. মেহেদি আলম এবং সিঅ্যান্ডএফ কর্মকর্তা সাইফুল ইসলাম।

বর্তমানে মামলাটি চট্টগ্রাম আদালতে বিচারাধীন। এ মামলায় পুলিশ মেহেদী আলমকে ২০১৫ সালের ১২ জুলাই গ্রেফতার করে। সেই থেকে তিনি কারাবন্দি।

এফএইচ/এমএসএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]