সুপ্রিম কোর্ট বার সভাপতির আসনে আমিন উদ্দিন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৪৬ পিএম, ০৬ জুন ২০২১ | আপডেট: ০৮:০৫ পিএম, ০৬ জুন ২০২১

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতির আসনে বসেছেন রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন।

রোববার (৬ জুন) বেলা ৩টার দিকে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবনের (বার অ্যাসোসিয়েশনের) সভাপতির কক্ষে নির্ধারিত আসনে বসেন তিনি।

সভাপতি পদ নিয়ে পক্ষে-বিপক্ষে চলমান কর্মসূচির মধ্যেই গত শুক্রবার (৪ জুন) সভাপতির চেয়ারে বসেছিলেন এ এম আমিন উদ্দিন।

জানা গেছে, আব্দুল মতিন খসরু মারা যাওয়ার পরে সৃষ্ট বিতর্কের পরও তিনি সভাপতির কক্ষে গেলেও চেয়ারে বসেননি।

এ বিষয়ে আওয়ামীপন্থী আইনজীবীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বেলা ৩টার দিকে অ্যাটর্নি জেনারেল আমিন উদ্দিন সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতির কক্ষে গিয়ে সভাপতির জন্য নিদিষ্ট করে রাখা চেয়ারে বসেছিলেন। এ সময় আইনজীবীরা তাকে স্বাগত জানান। ওই কক্ষে আওয়ামীপন্থী আইনজীবীরা উপস্থিত হয়ে ফটোসেশন করেন।

jagonews24

এদিকে জাতীয়তাবাদী ঐক্য প্যানেল (বিএনপি ও জামায়াতপন্থী) থেকে নির্বাচিত সুপ্রিম কোর্ট বারের সম্পাদক ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজলও তার পাশের কক্ষে এর আগে থেকেই বসে আসছিলেন। তিনি নিয়মিত কক্ষে বসে বারের কাজকর্ম করেন।

এদিকে, আইনজীবী সমিতির সভাপতি পদ নিয়ে সৃষ্ট জটিলতায় ধারাবাহিকভাবে কর্মসূচির দিয়ে আসছেন বিএনপি জামায়াতপন্থী আইনজীবীরা।

তারই অংশ হিসেবে আজ দুপুরেও অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিনকে সভাপতি ঘোষণার বিরোধিতা করে মিছিল ও সমাবেশ কর্মসূচি পালন করেন তারা। অন্যদিকে আওয়ামী লীগপন্থী বঙ্গবন্ধু আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের আইনজীবীরাও একই সময়ে এ এম আমিন উদ্দিনের সমর্থনে মিছিল-সমাবেশ করেন।

গত ৪ মে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি হিসেবে অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিনের নাম ঘোষণা করে কার্যনির্বাহী কমিটির আওয়ামীপন্থী অংশ। তাদের দাবি, সমিতির বিশেষ সাধারণ সভায় আমিন উদ্দিন কণ্ঠভোটে সভাপতি হয়েছেন।

jagonews24

সুপ্রিম কোর্ট বারের প্যাডে এক বিজ্ঞপ্তিতে সমিতির সহ-সভাপতি মুহাম্মদ শফিক উল্ল্যাহ বলেন, তার সভাপতিত্বে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির বিশেষ সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। তিনি সমিতির সভাপতি পদে এ এম আমিন উদ্দিনের নাম প্রস্তাব করলে উপস্থিত সদস্যরা করতালি ও কণ্ঠভোটে তার প্রস্তাবকে সমর্থন করেন।

এ সময় এ এম আমিন উদ্দিনকে ২০২১-২২ মেয়াদের অবশিষ্ট সময়ের জন্য সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত ঘোষণা করা হয়। সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির গঠনতন্ত্রের ১৬ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী আমিন উদ্দিন সভাপতি পদে দায়িত্ব পালন করবেন।

এই সিদ্ধান্তের সঙ্গে আওয়ামীপন্থী প্যানেল থেকে নির্বাচিত সমিতির সহ-সভাপতি মুহাম্মদ শফিক উল্ল্যাহসহ সাতজন কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্য একমত পোষণ করে স্বাক্ষর করেন। অবশ্য বিএনপিপন্থী প্যানেল থেকে নির্বাচিত সমিতির সম্পাদক ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজলসহ কার্যনির্বাহী পরিষদের ছয় সদস্য এতে স্বাক্ষর করেননি।

সমিতির প্যাডে ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজলের পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ৪ মে বিশেষ সাধারণ সভা উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কোনো আলোচনা ও সিদ্ধান্ত চাড়াই পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত মুলতবি ঘোষণা করা হয়।

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নির্বাচিত সভাপতি আব্দুল মতিন খসরুর মৃত্যুতে সভাপতির পদটি শূন্য হয়।

jagonews24

আব্দুল মতিন খসরুর মৃত্যুতে সভাপতি নির্বাচনে করণীয় ঠিক করতে গত ৪ মে বিশেষ সাধারণ সভার আহ্বান করা হয়। সভার শুরুতে সাধারণ সভার সভাপতিত্ব নিয়ে আওয়ামী এবং বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের মধ্যে তুমুল হট্টগোল শুরু হয়। এ অবস্থায় সম্পাদক ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল ঘোষণা দেন, বারের সংবিধান অনুযায়ী আমি এ সভা পরিচালনা করব। তখন এক পক্ষ বিরোধিতা শুরু করলে আওয়ামীপন্থী আইনজীবীদের সহ-সভাপতি মুহাম্মদ শফিক উল্ল্যাহ ডায়াসে দাঁড়িয়ে ঘোষণা দেন তিনি সভার সভাপতিত্ব করবেন।

তখন কাজল বলেন, উনার সভাপতিত্ব করার কোনো কার্যবিবরণী পাস হয়নি। সিনিয়র আরেকজন সহ-সভাপতি আছেন।

তখন শফিক উল্ল্যাহ বলেন, আমি আজকের সভার সভাপতি। এই সভা থেকে ঘোষণা করছি, আজ থেকে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ এম আমিন উদ্দিন। তখন আওয়ামীপন্থী আইনজীবীরা তাকে সমর্থন দেন। বিএনপিপন্থী আইনজীবীরা এর বিরোধিতা করতে থাকেন। তারা চিৎকার করে বলতে থাকেন কণ্ঠ ভোট নয়, নির্বাচন চাই। এক পর্যায়ে মিলনায়তনের বৈদ্যুতিক সংযোগ ও মাইকের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়। মঞ্চের ওপর ধাক্কাধাক্কির ঘটনাও ঘটে।

তখন সম্পাদক ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল বলেন, সাধারণ সভা করার মতো পরিবেশ-পরিস্থিতি না থাকায় সভা মুলতবি করা হলো। হট্টগোলের মধ্যে দিয়ে বিশেষ সাধারণ সভাটি শেষ হয়।

এফএইচ/জেডএইচ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]