গার্ড অব অনারে নারী: সংসদীয় চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় হাইকোর্ট

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:০৮ পিএম, ১৫ জুন ২০২১ | আপডেট: ০৬:৩৫ পিএম, ১৫ জুন ২০২১

‘গার্ড অব অনার’ প্রদানে নারী উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের (ইউএনও) বিকল্প চাওয়া সংসদীয় কমিটির সুপারিশ গেজেট না হওয়া পর্যন্ত কোনো আদেশ নয় বলে মন্তব্য করেছেন হাইকোর্ট। রিট আবেদনটির শুনানি আরও চার সপ্তাহ মুলতবি রেখে এই আদেশ দেন আদালত। বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেন রিটকারী আইনজীবী অ্যাডভোকেট ফাওজিয়া করিম।

নারী ইউএনওরা গার্ড অব অনার দিতে পারবেন না সংসদীয় কমিটির এমন সুপারিশের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে করা রিট আবেদনের শুনানিতে মঙ্গলবার (১৫ জুন) হাইকোর্টের বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি কামরুল হোসেন মোল্লার ভার্চুয়াল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে আজ রিটের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন অ্যাডভোকেট ফাওজিয়া করিম। তার সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার কাজী মারুফুল আলম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার নওরোজ মো. রাসেল চৌধুরী ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল এমএমজি সরোয়ার পায়েল।

রিট আবেদনের শুনানিতে আদালত বলেন, ‘বিষয়টি সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সুপারিশ মাত্র। এমন সুপারিশ গেজেট আকারে প্রকাশিত হলে তখন এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় আদেশ দেয়া হবে। তাই সে পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।’

রিটের শুনানিতে মানবাধিকার কর্মী ফাওজিয়া করিম বলেন, ‘সংবিধান নারী পুরুষের সমান অধিকার দিয়েছে। সংবিধানের ২৮ অনুচ্ছেদে বলা বলা হয়েছে, নারী পুরুষ ভেদে কারও প্রতি বৈষম্য প্রদর্শন করা যাবে না।’

তখন আদালত বলেন, যেহেতু বিষয়টি এখনো সংসদে বিবেচনাধীন তাই আদালত এখনই ইন্টারফেয়ার করবে না। পরে আদালত রিট আবেদনটির শুনানি চার সপ্তাহ মুলতবির আদেশ দেন।

রিটের শুনানিতে ফাওজিয়া করিম আদালতকে বলেন, ‘সংসদীয় স্থায়ী কমিটি মাঝে মাঝে এমন সব সিদ্ধান্ত দিচ্ছে যা শুনলে মনে হয় তারা ফতোয়া দিচ্ছেন। দিনে দিনে তারা ফতোয়া দেয়া কমিটিতে পরিণত হচ্ছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা এ বিষয়টি প্রথমে মৌখিকভাবে হাইকোর্টের নজরে আনি। কিন্তু আদালত আমাদের আবেদন আকারে যেতে বলেন। পরে এ বিষয়ে রিট দায়ের করা হয়।’

মানবাধিকার বিষয়ক সংগঠন ফাউন্ডেশন ফর ল’ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্টের (এফএলএডি) আইন ও গবেষণা বিভাগের পরিচালক ব্যারিস্টার কাজী মারুফুল আলম এ রিট দায়ের করেন। রিটে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যানসহ তিনজনকে বিবাদী করা হয়েছে।

রিট আবেদনে সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সুপারিশ কেন বৈষম্যমূলক, বেআইনি ও অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারির আরজি জানানো হয়েছে।

এর আগে মৃত্যুবরণকারী (শহীদ) বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ‘গার্ড অব অনার’ প্রদানে নারী উপজেলা নির্বাহী অফিসারের (ইউএনও) বিকল্প চেয়ে সুপারিশ করে সংসদীয় কমিটি। কমিটি এক্ষেত্রে যেসব জায়গায় নারী ইউএনও রয়েছেন, সেখানে পুরুষ কোনো ব্যক্তিকে দিয়ে গার্ড অব অনার প্রদান করার কথা বলে। পাশাপাশি গার্ড অব অনার প্রদান দিনের বেলায় আয়োজন করার সুপারিশ করা হয়।

গত ১৩ জুন সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির বৈঠকে এ সুপারিশ করা হয় বলে সংসদ সচিবালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে কমিটির সভাপতি শাজাহান খান বলেন, ‘মহিলা ইউএনও গার্ড অব অনার দিতে গেলে স্থানীয় পর্যায়ে অনেকে প্রশ্ন তোলেন। মহিলারা তো জানাজায় থাকতে পারেন না। সেক্ষেত্রে মহিলা গার্ড অব অনার দেন—এরকম একটি ব্যাপার আর কী। সেজন্য এ বিষয়ে বৈঠকে একটি প্রস্তাব এসেছে। মহিলার বিকল্প একজন পুরুষকে দিয়ে গার্ড অব অনার দেয়ার বিষয়টি এসেছে। আমরা মন্ত্রণালয়কে এটা পরীক্ষা করে দেখতে বলেছি।’

এফএইচ/এমআরআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]