ভল্ট থেকে টাকা উধাও : কারাগারে ঢাকা ব্যাংকের দুই কর্মকর্তা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:৫৬ পিএম, ১৮ জুন ২০২১ | আপডেট: ০৬:১৮ পিএম, ১৮ জুন ২০২১

ঢাকা ব্যাংকের বংশাল শাখার ভল্ট থেকে তিন কোটি ৭৭ লাখ ৬৬ হাজার টাকা উধাও হওয়ায় ঘটনায় আটক দুই কর্মকর্তাকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

তারা হলেন-ব্যাংকের সিনিয়র অফিসার ক্যাশ ইনচার্জ রিফাতুল হক ও ম্যানেজার অপারেশন এমরান আহমেদ।

শুক্রবার (১৮ জুন) তাদের ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ। এরপর বংশাল থানার সাব-ইন্সপেক্টর প্রদীপ কুমার সরকার তাদের ৫৪ ধারায় আটক দেখিয়ে কারাগারে রাখার আবেদন করেন।

আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগর হাকিম মাসুদুর রহমান তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

আবেদনে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা উল্লেখ করেন, আসামিরা ব্যাংকের ভল্টের টাকার দায়িত্বে ছিলেন। ভল্টের চাবি তাদের কাছেই ছিল। বৃহস্পতিবার ব্যাংকের অডিট টিম অডিট করার সময় ভল্টে থাকা তিন কোটি ৭৭ লাখ ৬৬ হাজার টাকার হিসাবে গড়মিল পান। ব্যাংকের ম্যানেজার আবু বক্কর সিদ্দিকের কাছে অডিট টিম টাকা গড়মিলের স্টেটমেন্ট দাখিল করে। তখন আবু বক্কর সিদ্দিক অডিট টিমের স্টেটমেন্টের ভিত্তিতে আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদ করেন। আসামিরা তাৎক্ষণিকভাবে টাকা আত্মসাতের কথা স্বীকার করেন।

আবেদনে আরও বলা হয়, ব্যাংকের ম্যানেজার তখন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলাপ করে অডিট টিমের সহায়তায় আসামিদের আটক করেন। আসামিদের থানায় হাজির করে আবু বক্কর সিদ্দিক বংশাল থানার অফিসার ইনচার্জ বরাবর অভিযোগ দায়ের করেন। অফিসার ইনচার্জ অভিযোগটি পর্যালোচনা করে দেখতে পান ঘটনাটি পেনাল কোডের ৪০৯ ধারার অপরাধ। যার তদন্ত ক্ষমতা দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) শিডিউলভূক্ত।

শুক্রবার (১৮ জুন) সকালে বংশাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা-ওসি (তদন্ত) মো. রেজাউল বলেন, গতকাল রাতে ঢাকা ব্যাংক কর্তৃপক্ষ আমাদের কাছে দুজনকে সোপর্দ করে। পরে তাদের আদালতে প্রেরণ করা হয়।

জেএ/জেডএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]