জেএমবির আঞ্চলিক কমান্ডারসহ তিনজন কারাগারে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৪৭ পিএম, ১৩ জুলাই ২০২১
প্রতীকী ছবি

সন্ত্রাসবিরোধী আইনে করা মামলায় নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন নব্য জেএমবির আঞ্চলিক সামরিক কমান্ডারসহ তিনজনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

কারাগারে যাওয়া আসামিরা হলেন- নব্য জেএমবির ময়মনসিংহ অঞ্চলের সামরিক কমান্ডার সাব্বির হোসেন ওরফে বামছি ব্যারেক ওরফে মেজর বামছি ওরফে আবু হাফস আল বাঙ্গালি ওরফে খালেদ ওরফে জন ডেভিড, তার সহযোগী রবিউল ইসলাম ওরফে ওসমান এবং নাঈম মিয়া।

মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) চার দিনের রিমান্ড শেষে তাদের ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে পুলিশ। এরপর মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাদের কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের বোম ডিসপোজাল ইউনিটের এস আই (নি.) গোলাম মর্তুজা। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগর হাকিম মাসুদ-উর-রহমান তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

এর আগে গত ৭ জুলাই সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে রাজধানীর পল্লবীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী ইনডোর স্টেডিয়ামের পাশের নির্মাণাধীন ভবনের সামনে থেকে তাদের গ্রেফতার করে পুলিশ। এ সময় তাদের কাছ থেকে বিস্ফোরকজাতীয় গুড়া পদার্থ, বিস্ফোরক ও বোমা তৈরির নথিপত্র উদ্ধার করা হয়। পরদিন আদালত তাদের চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ডে সাব্বির আহম্মেদের তথ্যের ভিত্তিতে ১১ জুলাই বেলা দেড়টার দিকে ঢাকা জেলার কেরানীগঞ্জ থানার রুহিতপুর এলাকা থেকে কাউছার মিয়াকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তার তথ্যের ভিত্তিতে আব্দুল্লাহ আল মামুনকে যাত্রাবাড়ী থেকে গ্রেফতার করা হয়।

এই দুজনের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতেই নারায়ণগঞ্জের জঙ্গি আস্তানার খবর পায় পুলিশ। কাউছার মিয়া নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর থানার কাজীপাড়া এলাকায় তাদের সংগঠনের একটি আস্তানার কথা এবং আব্দুল্লাহ আল মামুন নারায়ণগঞ্জ জেলার আড়াইহাজারের নোয়াগাঁও গ্রামের মিয়াছাবের বাড়ির মসজিদের পাশে তার থাকার ঘরে তিনটি শক্তিশালী আইইডি এবং বিপুল পরিমাণ বোমা তৈরির সরঞ্জাম রয়েছে। পরে পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়।

এদিকে সোমবার (১২ জুলাই) একই মামলায় গ্রেফতার কাউছার মিয়া ও আব্দুল্লাহ আল মামুনের পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকা মহানগর হাকিম আদালত।

জেএ/এআরএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]