অভিন্ন সাজা প্রদানের নীতিমালা প্রণয়নে রুল

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:১৬ পিএম, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১
ফাইল ছবি

একই ধরনের অপরাধের বিচারে অভিন্ন ও সামঞ্জস্যপূর্ণ সাজার চর্চা নিশ্চিতে সাজা প্রদানের নীতিমালা প্রণয়ন করতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে লেজিসলেটিভ এবং সংসদ বিষয়ক সচিব, আইন ও বিচার বিভাগের সচিব এবং আইন কমিশনের চেয়ারম্যানকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

সুপ্রিম কোর্টের এক আইনজীবীর করা রিটের শুনানি শেষে রোববার (১৯ সেপ্টেম্বর) হাইকোর্টের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল বেঞ্চ এই রুল জারি করেন।

আদালতে আজ শুনানি করেন আবেদনকারী আইনজীবী মোহাম্মদ শিশির মনির। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার।

এর আগে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী মোহাম্মদ শিশির মনির ওই রিট আবেদনটি করেন।

রিটে গত বছরের ১ ডিসেম্বর যাবজ্জীবন মানে ৩০ বছরের কারাদণ্ড সংক্রান্ত আপিল বিভাগের রায়ে সাজাপ্রদান সংক্রান্ত নির্দেশনার প্রসঙ্গ রয়েছে।

রিটে বলা হয়, নির্দেশিকার অনুপস্থিতিতে বিস্তৃত এখতিয়ারের কারণে বিচারককে অনিশ্চিত ও অসামঞ্জস্যপূর্ণ সাজা প্রদানে পরিচালিত করে, যা সংবিধানের ২৭, ৩১ ও ৩২ অনুচ্ছেদের লঙ্ঘন।

শিশির মনির বলেন, যুক্তরাজ্য, কানাডা ও অস্ট্রেলিয়াসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে এ ধরনের নীতিমালা রয়েছে। এটা হলে অপরাধের গুরুত্ব, গভীরতা অনুসারে সাজা প্রদানের বিষয়টি নীতিমালায় থাকবে।

রিটের প্রার্থনায় দেখা যায়, আপিল বিভাগের ওই রায়ের আলোকে অভিন্ন ও সামঞ্জস্যপূর্ণ সাজার চর্চা নিশ্চিতে সাজা প্রদানে নির্দেশিকা বা নীতিমালা প্রণয়ন করতে নির্দেশ কেন দেওয়া হবে না, এ বিষয়ে রুল চাওয়া হয়েছে।

রুল হলে তা বিচারাধীন ওই ইস্যুটি (সাজার নির্দেশিকা) গভীর পরীক্ষায় অবসরপ্রাপ্ত বিচারক, জ্যেষ্ঠ আইনজীবী, শিক্ষাবিদ ও আইনি সহায়তা প্রদানকারী সংস্থার সঙ্গে আলোচনা করতে ও প্রতিবেদন দিতে আইন কমিশনের চেয়ারম্যানের প্রতি নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে রিটে। আইন মন্ত্রণালয়ের দুই সচিব ও আইন কমিশনের চেয়ারম্যানকে রিটে বিবাদী করা হয়েছে।

এফএইচ/এমএইচআর/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]