গ্রন্থাগারিক-সহকারী গ্রন্থাগারিক নিয়োগে আবেদন নিষ্পত্তির নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১:৩২ পিএম, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২১
ফাইল ছবি

বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও মাদরাসার গ্রন্থাগারিক এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যাটালগার পদে চলমান নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির আলোকে নিয়োগ কার্যক্রম সম্পন্ন করতে আবেদন নিষ্পত্তি করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

মাদরাসা অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে নিয়োগ কার্যক্রম সম্পন্ন করা সংক্রান্ত রিটকারীদের আবেদন/দরখাস্ত আগামী ৩০ (ত্রিশ) দিনের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে বলেছেন আদালত।

রিটকারীদের আইনজীবী মোহাম্মদ ছিদ্দিক উল্লাহ্ মিয়া জাগো নিউজকে আদেশের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও মাদরাসার ২৯ জন গ্রন্থাগারিক এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যাটালগার পদে চাকরীপ্রার্থীদের রিট পিটিশনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) হাইকোর্টের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম এবং বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ দেন।

আদালতে আজ রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মোহাম্মদ ছিদ্দিক উল্লাহ্ মিয়া। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার।

সারাদেশে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও মাদরাসার ২৯ জন গ্রন্থাগারিক এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যাটালগার পদে চাকুরপ্রার্থী রিট আবেদনটি করেন।

রিটে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের (কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ) সচিব এবং মাদরাসা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকসহ (ডিজি) ৫ জনকে বিবাদী করা হয়েছে।

রিট পিটিশনের বিষয়ে আইনজীবী মোহাম্মদ ছিদ্দিক উল্লাহ্ মিয়া জাগো নিউজকে আরও বলেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ ২০২০ সালের ২৩ নভেম্বর বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান মাদরাসা জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮ সংশোধনী প্রকাশ করে।

সংশোধনীতে গ্রন্থাগারিক এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যাটালগার পদ সৃষ্টি করে। উক্ত নীতিমালা অনুসারে সারাদেশে মাদরাসা কর্তৃপক্ষ জনবল নিয়োগের জন্য গ্রন্থাগারিক এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যাটালগার পদে নিয়োগের জন্য বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকায় নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। উক্ত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি অনুসারে রিটকারীরা গ্রন্থাগারিক এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যাটালগার পদে চাকরির আবেদন করেন।

চলতি বছরের ১৮ জুলাই কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ এ সংক্রান্ত একটি আদেশ জারি করেন এবং বেসরকারি (কারিগরি ও মাদরাসা) শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পূর্বের ‘সহকারী গ্রন্থাগারিক, সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যাটালগার, সহকারী গ্রন্থাগারিক/ক্যাটালগার’ পদটি ‘সহকারী শিক্ষক (গ্রন্থাগার ও তথ্য বিজ্ঞান)’ এবং পূর্বের ‘গ্রন্থাগারিক’ পদটি ‘গ্রন্থাগার প্রভাষক’ পদ হিসেবে নিয়োগ প্রদানের সিদ্ধান্ত হয়।

ওই স্মারকের শর্ত অনুসারে এসব পদে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে পরীক্ষা গ্রহণ ও উত্তীর্ণদের সনদ প্রদানসহ যথাযথ প্রক্রিয়া অনুসরণ পূর্বক স্ব স্ব অধিদপ্তরের চাহিদার অনুকূলে নিয়োগ সুপারিশ করা হবে মর্মে আদেশ জারি করেন।

কিন্তু ১৮ জুলাইয়ের আগে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তির আলোকে গ্রন্থাগারিক এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যাটালগার পদে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার জন্য কোনো নির্দেশনা প্রদান করা হয়নি। এরপর রিটকারীরা চলমান নিয়োগ কার্যক্রম সম্পন্ন করার জন্য যোগাযোগ করলেও কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি।

পরবর্তীতে রিটকারীরা গত ২৫ আগস্ট গ্রন্থাগারিক এবং সহকারী গ্রন্থাগারিক কাম ক্যাটালগার পদের চলমান নিয়োগ কার্যক্রম সম্পন্ন করার মাদরাসা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর আবেদন করলেও কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় তারা হাইকোর্টে রিট করেন। ওই রিটের শুনানি নিয়ে হইকোর্ট এ আদেশ দেন।

এফএইচ/এমএইচআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]