কারাগারে শূন্য পদে চিকিৎসক নিয়োগে হাইকোর্টের নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:০৪ পিএম, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১
ফাইল ছবি

দেশের কারাগারগুলোতে মোট ১৪১ জন চিকিৎসক প্রয়োজন, যার মধ্যে ১১২ জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। শূন্য ২৯ পদেও খুব শিগগিরই নিয়োগ দেওয়া হবে বলে হাইকোর্টকে জানিয়েছেন কারা কর্তৃপক্ষ।

মঙ্গলবার (২১ সেপ্টেম্বর) হাইকোর্টের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মুস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে এ বিষয়ে জানিয়েছেন কারা কর্তৃপক্ষ।

বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন রিটকারী আইনজীবী অ্যাডভোকেট জে আর খান রবিন। তিনি জানান, ‘আদালত প্রয়োজনীয় আরও চিকিৎসক দ্রুত সময়ের মধ্যে নিয়োগ দিতে বলেছেন।’

জানা গেছে, দেশে মোট ৬৮টি কারাগার রয়েছে। যার মধ্যে গাজীপুরের কাশিমপুরে একটি মহিলা কারাগার রয়েছে। এসব কারাগারে বন্দির তুলনায় চিকিৎসক সঙ্কট ছিল। বন্দিদের চিকিৎসা সেবা নিশ্চিতে শূন্য পদে চিকিৎসক নিয়োগ দেওয়ার নির্দেশনা চেয়ে রিট করা হয়।

রিটের পক্ষের আইনজীবী জে আর খান রবিন আরও বলেন, ১৪১ পদের বিপরীতে আদালতের নির্দেশে ১১২ জন নিয়োগ দেওয়া হয়েছে বলে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে। তবে এর মধ্যে আগের ছিলেন ২৪ জন। বাকি ২৯ জনকে দ্রুত নিয়োগ দিতে মৌখিকভাবে নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

তিনি জানান, সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে প্রতিবেদন দেওয়া হয়। যেটা আজ আদালতে দাখিল করা হয়।

আদালতের নির্দেশের পরও কারাগারে চিকিৎসক নিয়োগ না দেওয়ায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও কারা অধিদপ্তরের ডিজিকে গত ৭ মার্চ লিগ্যাল (আইনি) নোটিশ পাঠান রিটকারী আইনজীবী জে আর খান রবিন।

নোটিশে বলা হয়, দেশের ৬৮টি কারাগারে ৪০ হাজার ৬৬৪ কারাবন্দির ধারণক্ষমতা থাকলেও অনেক ক্ষেত্রে এর চেয়ে দুই-তিনগুণ বেশি কারাবন্দি অবস্থান করেন। অন্যদিকে ১৪১টি কারা ডাক্তারের পদের বিপরীতে ডাক্তার ছিলেন মাত্র ৯ জন।

এতে করে কারাবন্দিদের মৌলিক অধিকার বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আইনজীবী মো. জে আর খান (রবিন) জনস্বার্থে একটি রিট দায়ের করেন। ওই রিটের পরিপ্রেক্ষিতে ২০১৯ সালের ২৩ জুন বিচারপতি এএফএম নাজমুল আহসান ও বিচারপতি কেএম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ রুল জারি করেন। রুলে কারাবন্দিদের বাসস্থান ও চিকিৎসাসেবা নিশ্চিতের ব্যর্থতাকে কেন বেআইনি ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চান এবং কারা কর্তৃপক্ষকে সার্বিক বিষয়ে আাদালতকে অবহিত করার নির্দেশ দেন।

এরপর কারা কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন তারিখে হলফনামার মাধ্যমে দেশের সকল কারাগারে ২৪ জন ডাক্তার থাকার বিষয়ে নিশ্চিত করেন, একই সঙ্গে অবশিষ্ট খালি ১১৭টি পদে ডাক্তার নিয়োগের ব্যাপারেও প্রয়োজনীয় আদেশ প্রার্থনা করেন। এর ধারাবাহিকতায় ২০২০ সালের ২০ জানুয়ারি হাইকোর্ট অনতিবিলম্বে শূন্য পদে ১১৭ জন ডাক্তার নিয়োগের জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ডিজিকে নির্দেশ প্রদান করেন।

এরপর চলতি বছরের ১৭ জানুয়ারি কারা কর্তৃপক্ষ হলফের মাধ্যমে আদালতকে জানায় যে, ‘১৪১ পদের বিপরীতে ১২২ জন ডাক্তার দেশের বিভিন্ন কারাগারে নিয়োজিত আছেন। তার মধ্যে ঢাকা বিভাগে ২৭ জন, ময়মনসিংহ বিভাগে ৬ জন, রাজশাহী বিভাগে ১৮ জন, রংপুর বিভাগে ১১ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ১৭ জন, সিলেট বিভাগে ১৭ জন, খুলনা বিভাগে ১৬ জন, বরিশাল বিভাগে ১০ জন। ১২২ জনের মধ্যে ৭ জন ডিপুটেশন ও ১০৫ জন পর্যায়ক্রমে সংযুক্ত আছেন।’

এফএইচ/এএএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]