চান্দগাঁওয়ে জোড়া খুনের ঘটনায় অভিযোগপত্র

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৪৮ পিএম, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১

চট্টগ্রাম নগরের পুরাতন চান্দগাঁওয়ে গুলনাহার বেগম (৩৩) ও তার ছেলে রিফাত (৯) হত্যা মামলায় অভিযুক্ত মো. ফারুকের (৩৪) বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) আমলে নিয়েছেন আদালত।

বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার জাহানের আদালত অভিযোগপত্রটি আমলে নেন। এরপর বিচারিক কার্যক্রমের জন্য মহানগর দায়রা জজ আদালতে পাঠানো হয়।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০২০ সালের ২৪ আগস্ট নগরের পুরাতন চান্দগাঁও রমজান আলী সেরেস্তাদারের বাড়ি এলাকায় নিজ বাড়িতে খুন হন গুলনাহার বেগম ও তার ছেলে রিফাত। পরদিন ২৫ আগস্ট গুলনাহারের মেয়ে ময়ুরী বাদী হয়ে চান্দগাঁও থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। একই বছরের ১ অক্টোবর অভিযুক্ত ফারুককে আটক করে র্যাব। এরপর পুলিশের তদন্তে ওঠে আসে ফারুকই হত্যা করেছে গুলনাহার বেগম ও তার ছেলেকে।

পরিচয় সূত্রে গুলনাহারের বাসায় যাতায়াত ছিল একই এলাকার বাসিন্দা ফারুকের। ফারুককে ‘ভাই’ হিসেবে সম্বোধন করতেন গুলনাহার। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে বিভিন্ন বিষয়ে মনোমালিন্য সৃষ্টি হয়। এর জের ধরে ২৪ আগস্ট গুলনাহারকে হত্যা করে ফারুক। ঘটনাটি দেখে ফেলায় তার নয় বছরের ছেলে রিফাতকেও হত্যা সে। এ ঘটনার তদন্ত শেষে অভিযুক্ত ফারুকের বিরুদ্ধে ফৌজদারি কার্যবিধির ১৭৩ ধারায় অভিযোগপত্র জমা দেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। বুধবার শুনানি শেষে সেই অভিযোগপত্রটি আমলে নিয়েছেন আদালত।

এ ঘটনায় বাদীপক্ষকে আইনি সহায়তা দিচ্ছে মানবাধিকার সংগঠন বাংলাদেশ হিউম্যান রাইটস ফাউন্ডেশন (বিএইচআরএফ)।

সংগঠনটির আইনজীবী মো. বদরুল হাসান জাগো নিউজকে বলেন, ‘চান্দগাঁও থানার জোড়া খুনের ঘটনায় দীর্ঘ তদন্ত শেষে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা একমাত্র অভিযুক্ত ফারুককে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দিয়েছেন। আদালত সেটি আমলে নিয়েছেন এবং বিচারিক কার্যক্রমের জন্য অভিযোগপত্রটি মহানগর দায়রা জজ আদালতে পাঠানো হয়েছে।’

মিজানুর রহমান/এমএএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]