একাধিক কোম্পানির একীভূতকরণে মেমোরেন্ডামের প্রাসঙ্গিকতা

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:১৫ পিএম, ১৪ অক্টোবর ২০২১

কোম্পানি আইন নিয়ে আমাদের রয়েছে নানা জিজ্ঞাসা। একটি কোম্পানি গঠন করতে অবশ্যই অনুসরণ করতে হয় দেশের প্রচলিত আইন। কী সেসব আইন? এমন সব আইনি বিষয়ে সমাধান দেবেন অ্যাডভোকেট মো. নজরুল ইসলাম খান। আজ জেনে নেই একাধিক কোম্পানির একীভূতকরণে মেমোরেন্ডামে বর্ণিত উদ্দেশ্যের প্রাসঙ্গিকতা সম্বন্ধে।

>>কোম্পানি আইনের আলোচনায় Merger ও Amalgamation শব্দ দুটি একই তাৎপর্য বহন করে। Amalgamation অর্থ একীভূতকরণ। এ প্রক্রিয়ায় একটি কোম্পানি (Transferor) স্থাবর ও অস্থাবর সমস্ত সম্পত্তি (Asset), দায় (Liability) একটি স্কিমের আওতায় অপর একটি কোম্পানির (Transferee) কাছে হস্তান্তর করে।

অবলুপ্তির (Winding Up) প্রক্রিয়া ছাড়াই হস্তান্তরকারী কোম্পানির আইনগত সত্তার (Legal Entity) অবসান ঘটে।

হস্তান্তরকারী কোম্পানির সদস্যরা হস্তান্তর গ্রহীতা কোম্পানিতে (সম্মতিক্রমে নির্ধারিত অনুপাতে) শেয়ার অর্জন করেন।
একটি Amalgamation স্কিম কোম্পানি আইন, ১৯৯৪ এর ২২৮ এবং ২২৯ ধারার অধীনে আদালতের অনুমোদন (Confirmation) সাপেক্ষে কার্যকর করা যায়।

মেমোরেন্ডামে বর্ণিত উদ্দেশ্যগুলো একীভূতকরণের (Amalgamation) বিধান না থাকলে একাধিক কোম্পানি একীভূত হতে পারে কি না- এ প্রশ্ন প্রায়ই উত্থাপিত হয়। এ অবস্থায়ও একাধিক কোম্পানি একীভূত হতে পারে বলে ভারতের বিভিন্ন আদালত সিদ্ধান্ত দিয়েছিলেন।

তবে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ আদালতের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কোম্পানির মেমোরেন্ডামে বর্ণিত উদ্দেশ্যগুলো একীভূতকরণের (Amalgamation) বিধান না থাকলে দু’টি কোম্পানির একীভূতকরণ সম্ভব নয়।

সেক্ষেত্রে কোম্পানি আইন, ১৯৯৪ এর ১২ এবং ১৩ ধারা অনুযায়ী উদ্দেশ্যগুলোর মধ্যে একীভূতকরণের (Amalgamation) বিধান অন্তর্ভুক্ত করতে হয়। অতঃপর কোম্পানি দুটি একীভূতকরণ (Amalgamation) প্রক্রিয়ায় অংশ নিতে পারে।

মো. নজরুল ইসলাম খান
অ্যাডভোকেট, বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট
ই-মেইল. [email protected]

এএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]