ই-জুডিশিয়ারি ও ই-কোর্ট রুমের অগ্রগতি নিয়ে শুনানি ৩০ নভেম্বর

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:২৫ পিএম, ২১ অক্টোবর ২০২১
ফাইল ছবি

সারাদেশের আদালতে ই-জুডিশিয়ারি ও ই-কোর্ট রুম দ্রুত স্থাপনের নির্দেশনার বিষেয়ে অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিল করার জন্যে আগামী ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত সময় দিয়েছেন হাইকোর্ট।

এ সংক্রান্ত রিটের শুনানি নিয়ে বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) হাইকোর্টের বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে আজ রিটের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট ফরহাদ উদ্দিন আহমেদ ভূঁইয়া। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার। আদেশের বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেন অ্যাডভোকেট ফরহাদ উদ্দিন আহমেদ ভূঁইয়া।

ই-জুডিশিয়ারি অগ্রগতি প্রতিবেদন দাখিলের বিষয়ে ফরহাদ উদ্দিন আহমেদ ভূঁইয়া জানান, এর আগে কয়েকবার সময় দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু প্রতিবেদন দাখিল করা হয়নি। আজকেও ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত সময় দিয়েছেন আদালত।

এর আগে সারাদেশের আদালতে ই-জুডিশিয়ারি ও ই-কোর্ট রুম স্থাপনের নির্দেশ কেন দেওয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে, ই-জুডিশিয়ারি স্থাপনের বিষয়ে অগ্রগতি প্রতিবেদন আগামী ৯০ দিনের মধ্যে আদালতে দাখিল করতে বলা হয়েছে।

গত ১১ আগস্ট এ বিষয়ে শুনানির দিন ছিল। এরও আগে গত ১৯ জানুয়ারি এ সংক্রান্ত রিটের শুনানি নিয়ে হাইকোর্টের একই বেঞ্চে এই আদেশ দেন।

এর আগে গত বছরের ১১ ডিসেম্বর ই-জুডিশিয়ারি স্থাপনের নির্দেশনা চেয়ে অ্যাডভোকেট ফরহাদ উদ্দিন আহমেদ ভূঁইয়া হাইকোর্টে রিট করেন। আইন সচিবসহ সংশ্লিষ্ট ৯ জনকে চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

অ্যাডভোকেট ফরহাদ উদ্দিন আহমেদ ভূঁইয়া বলেন, বিচারকাজ দ্রুত সম্পাদন ও বিচার প্রার্থীদের ভোগান্তি দূরসহ সংবিধানের ৩১, ৩২ এবং ৩৫ এর (৩) অনুচ্ছেদের চেতনার সঙ্গে বিদ্যমান বিচার ব্যবস্থা সাংঘর্ষিক বিধায় এ রিট করি।

এফএইচ/কেএসআর/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]