‘প্রতিষ্ঠান নিরাপত্তা না দিলে আজ আবরার, কাল আরেকজন মারা যাবে’

জাগো নিউজ টিম জাগো নিউজ টিম ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালত
প্রকাশিত: ০১:২৩ পিএম, ২৮ নভেম্বর ২০২১

আবরার হত্যা মামলার রায় ঘোষণা পেছানোর পর প্রতিক্রিয়ায় আসামিপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট ফারুক আহম্মেদ বলেছেন, আজ রায় হওয়ার কথা ছিল। মহামান্য আদালত বলেছেন আজকে উনার প্রিপ্রারেশন নাই। আমরা আজকে সবাই রায় শুনতে এসেছিলাম। যেহেতু আদালতের জাজমেন্ট প্রস্তুত হয় নাই, তাই আজ রায় হয়নি। এটা সম্পূর্ণ বিচারকের এখতিয়ার।

তিনি আরও বলেন, হয়তো উনি পুঙ্খানুপুঙ্খরূপে বিশ্লেষণ করছেন। আরও গভীরে গিয়ে চিন্তাভাবনা করছেন, যেহেতু এটা একটা চাঞ্চল্যকর মামলা।

মামলার চার্জশিট বিষয়ে এই আইনজীবী বলেন, এ মামলায় যারা মাস্টারমাইন্ড ছিল তাদের মামলায় আনা হয়নি। আদালতকে আমরা বলেছি, চার্জশিটে উল্লেখ আছে ‘বড় ভাই’য়ের নির্দেশে কাজটা হয়েছে। বড় ভাইরা কারা? কার নির্দেশে এটা করা হলো? কোন বড় ভাইরা এটা করালো?

বুয়েটের ভূমিকা নিয়ে তিনি বলেন, আরেকটা বিষয়, বুয়েটের অনেক দুর্বলতা আছে। তাদের গাফিলতি আছে। এজাহার অনুযায়ী, রাত ৮টা থেকে ৩টা পর্যন্ত ঘটনা। এই সময়ে বুয়েট কর্তৃপক্ষ ঘুমাচ্ছে! আমরা যত জন সাক্ষী পেয়েছি ১৮ জন সাক্ষী পেয়েছি বুয়েটের। সবাই বলেছে তারা ঘুমিয়েছিল। তাহলে বুয়েট কী নিরাপত্তা দিল? আজকে আবরার মারা গেছে কাল আরেকজন মারা যাবে। বহিরাগতরা এসে কতল করে চলে যাবে। আমরা মনে করি বুয়েটের গাফিলতি আছে। তাদের এ মামলায় আইনগতভাবে জড়িত করার প্রয়োজন ছিল।

রোববার (২৮ নভম্বর) রায় ঘোষণার জন্য দিন ধার্য ছিল। তবে রায় প্রস্তুত না হওয়ায় ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান রায় ঘোষণা পিছিয়ে নতুন দিন ধার্য করেন। এর আগে ঢাকার কেরানীগঞ্জের কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে ২২ আসামিকে আদালতে হাজির করা হয়। এ মামলার তিন আসামি শুরু থেকে পলাতক রয়েছেন।

এদিন দুপুর ১২টা ৭ মিনিটে বিচারক এজলাসে ওঠেন। এরপর বিচারক বলেন, রাষ্ট্র ও আসামি পক্ষের আইনজীবীরা যে যুক্তি উপস্থাপন করেছেন তা বিশ্লেষণ করে রায় প্রস্তুত করা সম্ভব হয়নি। রায় প্রস্তুত করতে আরও সময় লাগবে।তাই এ মামলার রায় ঘোষণার জন্য ৮ ডিসেম্বর দিন ধার্য করা হলো।

এর আগে গত ১৪ নভেম্বর রাষ্ট্র ও আসামিপক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক আবু জাফর মো. কামরুজ্জামান রায় ঘোষণার জন্য এ দিন ধার্য করেন।

এসএম/জেএ/এমএইচএম/এমআইএস/রায়হান আহমেদ/এমএইচআর/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]