‘বিজয়-৭১’ ভবন পরিদর্শন করলেন প্রধান বিচারপতি ও আইনমন্ত্রী

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০:০২ পিএম, ২৩ মে ২০২২

সুপ্রিম কোর্টের জন্য নির্মিত ১২তলা ভবন ‘বিজয়-৭১’ পরিদর্শন করেছেন প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী ও আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

সোমবার (২৩ মে) বিকেল ৩টায় ভবনের বিভিন্ন অংশ ঘুরে দেখেন তারা। এসময় তাদের সঙ্গে ভবনের নির্মাণকাজের প্রধান স্থপতি, সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্টার জেনারেল, সুপ্রিম কোর্টের আপিল ও হাইকোর্ট বিভাগের রেজিস্ট্রার এবং সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির নেতারা ছিলেন।

পরিদর্শনের পরে চলাচলের সুবিধার্থে ‘বিজয়-৭১ ভবন’র সঙ্গে সংযুক্ত করে আইনজীবী সমিতি ভবন থেকে একটি গ্যাংওয়ে (সংযোগ সেতু) পর্যাপ্ত লিফটের ব্যবস্থা করার পদক্ষেপও নিতে হবে বলে আশ্বাস দেন প্রধান বিচারপতি ও আইনমন্ত্রী।

এ সময় তাদের সঙ্গে ছিলেন সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্টার জেনারেল, আপিল বিভাগের রেজিস্ট্রার ও হাইকোর্ট বিভাগের রেজিস্টার, অন্যান্য কর্মকর্তা এবং নবনির্বাচিত নেতৃবৃন্দ ও অন্যান্য আইনজীবীরা। তাদের সঙ্গে ভবনের নির্মাণকাজের সঙ্গে জড়িত প্রধান স্থপতি ছিলেন।

এর আগে গত ৩১ মার্চ সুপ্রিম কোর্টের এনেক্স ভবনের আধুনিক ও নান্দনিক ১২তলা ‘বিজয়-৭১ ভবন’ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গণভবন থেকে এ অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে প্রধান অতিথি হিসেবে ভবনের উদ্বোধন করেন তিনি।

উদ্বোধনের পর থেকে ভবনে চলাচলের জন্য পর্যাপ্ত লিফট না থাকা, আইনজীবী সমিতি ভবন ও সুপ্রিম কোর্টের অন্য ভবন থেকে ‘বিজয়-৭১’ ভবনে যাতায়াতের জন্য সংযোগ সেতু না থাকায় বিষয়টি আলোচনা-সমালোচনার জন্ম দেয়। এরইমধ্যে প্রধান বিচারপতি ও আইনমন্ত্রী আজ ভবন পরিদর্শনে আসেন।

জানা গেছে, সুপ্রিম কোর্টের এনেক্স এক্সটেনশন (বর্ধিত) ভবন নির্মাণে বরাদ্দ দেওয়া হয় ১৫৮ কোটি চার লাখ ২২ হাজার টাকা। যার পুরোটাই বহন করছে সরকার। এনেক্স ভবনের পশ্চিম পাশে ১৮ হাজার ১৩৪ বর্গমিটার জায়গায় নির্মিত হয় এ ভবন।

এতে রয়েছে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা, বিচারপতিদের জন্য ৫৬টি চেম্বার, ৩২টি এজলাস কক্ষ (কোর্ট রুম), আলাদা দুটি লিফট, আধুনিক জেনারেটর ও দোতলা বিদ্যুতের সাব-স্টেশন। এছাড়া এ ভবনে ৩২টি ডিভিশন বেঞ্চ ও বিচারপতিদের চেম্বার ছাড়াও ২০টি অফিস কক্ষ এবং সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসনের দাপ্তরিক কক্ষ রয়েছে।

এফএইচ/এমকেআর/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]