কুষ্টিয়ার ডিসি-এসপিকে হাইকোর্টে আসতে হবে ২১ আগস্ট

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:২৬ এএম, ১৫ আগস্ট ২০২২
ফাইল ছবি

হাইকোর্টের নির্দেশনার পরও ১৩৩ কোটি টাকার বেশি মূল্যের সম্পত্তি মাত্র ১৫ কোটি টাকায় নিলামে তোলায় কুষ্টিয়ার ডিসি-এসপিসহ পাঁচজনকে তলব করেছিলন হাইকোর্ট। আগামী ২১ আগস্ট সকাল সাড়ে ১০টায় তাদের আদালতে উপস্থিত হওয়ার জন্য বলা হয়েছে। এছাড়া নিলাম করা সম্পত্তির ওপর স্থিতাবস্থা জারি করেছেন আদালত। ওই সম্পত্তি এখন যে অবস্থায় আছে পরবর্তী নির্দেশনা না দেওয়া পর্যন্ত সে অবস্থায় থাকবে।

বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করেছেন সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট মো. মোমতাজ উদ্দিন ফকির।

ওই আদেশের বিরুদ্ধে করা আপিল আবেদন শুনানি নিয়ে রোববার (১৪ আগস্ট) আপিল বিভাগের বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের চেম্বার আদালত এ আদেশ দেন।

আদালতে আজ আপিলের বিষয়ে শুনানিতে ছিলেন অ্যাডভোকেট নুরুল আমীন। আর রিটের পক্ষে শুনানি করেন সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট মো. মমতাজ উদ্দিন ফকির ও ব্যারিস্টার রাগিব রউফ চৌধুরী। তাদের সঙ্গে ছিলেন ব্যারিস্টার মো. নাজিরুল আলম রনি।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) আদালতের স্থগিতাদেশ থাকার পরও ১২৩ কোটি টাকার সম্পত্তি ১৫ কোটি টাকায় নিলামে বিক্রি করার ঘটনায় ব্র্যাক ব্যাংকের এমডি সেলিম আর এফ হোসাইন, কুষ্টিয়ার ডিসি মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম, এসপি মো. খায়রুল আলম, সদর থানার ওসি মো. সাব্বিরুল আলম ও নিলামে সম্পত্তি নেওয়া ব্যবসায়ী আব্দুল রশিদকে তলব করেন হাইকোর্ট। ওই আদেশটি আজ বহাল রেখেছেন চেম্বার আদালত।

সেদিন হাইকোর্টের বিচারপতি আবু তাহের মোহাম্মদ সাইফুর রহমান ও বিচারপতি একেএম রবিউল হাসাইনের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এই আদেশ দেন। আদালতে রিট আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী ব্যারিস্টার রাগিব রউফ চৌধুরী।

আদেশের বিষয়টি জাগো নিউজকে নিশ্চিত করে ব্যারিস্টার রাগীব রউফ চৌধুরী জানান, সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগের একটি দ্বৈত বেঞ্চের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে প্রায় ১৩৩ কোটি টাকা মূল্যের তিনটি কারখানার সম্পত্তি মাত্র ১৫ কোটি টাকায় নিলামে বিক্রি করার ঘটনায় ৫ জনকে তলব করেছেন। যে পাঁচজনকে তলব করা হয়েছে তারা হলেন- কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক (ডিসি), পুলিশ সুপার (এসপি), সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)-সহ পাঁচ জন। তাদের আগামী ২১ আগস্ট আদালতে স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলা হয়েছে।

এর আগে গত ২৪ মার্চ ওই সম্পত্তি (প্রতিষ্ঠান) নিলামে তুলতে দুটি পত্রিকায় বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়। ওই নিলামের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করেন মেসার্স বিশ্বাস ট্রেডার্স, ভিআইপি রাইস মিলস এবং ভিআইপি অটো রাইস মিলস লিমিটেডের স্বত্বাধিকারী মো. শফিকুল ইসলাম। এর পর ২ আগস্ট নিলাম স্থগিত করে আদেশ দেন হাইকোর্ট। এর পরেও গত ৫ আগস্ট নিলাম ক্রয়কারী আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহযোগিতা নিয়ে রাতে জমি দখল করে সাইনবোর্ড টানিয়ে দেয়।

এফএইচ/এমএইচআর

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।