জেলা পরিষদ নির্বাচন

হাইকোর্টে প্রার্থিতা ফিরে পেলেন বিএনপি নেতা মাসুদ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৪৬ পিএম, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২
ফাইল ছবি

নীলফামারী জেলা পরিষদের নির্বাচনে সাধারণ সদস্য প্রার্থী ও বিএনপি নেতা মো. মাসুদ রানার মনোনয়নপত্র রিটার্নিং অফিসার ও আপিলেট অথরিটির দেওয়া আদেশ স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। এতে হলফনামায় মামলার তথ্য না দেওয়ার অভিযোগে বাতিল হওয়া মাসুদের মনোনয়নপত্র বৈধ হয়েছে।

একই সঙ্গে মাসুদের মনোনয়নপত্র বাতিলের সিদ্ধান্ত কেন অবৈধ ও বেআইনি ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন আদালত।

রোববার (২৫ সেপ্টেম্বর) হাইকোর্টের বিচারপতি মো. রুহুল কুদ্দুস ও বিচারপতি এস এম মনিরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মো. রুহুল কুদ্দুস কাজল। তাকে সহায়তা করেন আইনজীবী মো. আকতার রসুল, মো. মোসাদ্দেক বিল্লাহ, আবদুল্লাহিল মারুফ ফাহিম, নূরে আলম সিদ্দিকী ও নাজিয়া জাহান চৌধুরী।

আকতার রসুল বলেন, এর আগে হলফনামায় মামলার তথ্য না দেওয়ার অভিযোগে গত ১৮ সেপ্টেম্বর নীলফামারী জেলা পরিষদের নির্বাচনে সদস্য প্রার্থী মো. মাসুদের মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেন জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক। পরে মনোনয়নপত্র বাতিল আদেশের বিরুদ্ধে নীলফামারী নির্বাচন কমিশনারের কার্যালয়ে আপিল করেন মাসুদ। সেখানেও মনোনয়নপত্র বাতিলের সিদ্ধান্ত বহাল রাখা হয়। এ আদেশের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে রিট করেন মাসুদ। ওই রিটের শুনানি নিয়ে আজ (রোববার) এ আদেশ দেন আদালত।

ব্যারিস্টার মো. রুহুল কুদ্দুস বলেন, এ আদেশের ফলে মাসুদ জেলা পরিষদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারবেন এবং আদালত প্রতীক বরাদ্দ দেওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন।

আগামী ১৭ অক্টোবর নীলফামারী জেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এবারের নির্বাচনে ইলেকট্রিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ৮৫৮ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

এফএইচ/আরএডি/জিকেএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।