বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী সুমনের ‘মৃত্যু’, দুজনের বিরুদ্ধে মামলা

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:৩৯ পিএম, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২
ফাইল ছবি

বেসরকারি সোনারগাঁও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আরিফ মাহমুদ সুমনের রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় মোহাম্মদ হৃদয় মিয়া (২২) ও রনি হোসেনের (২৭) নামে মামলা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর) ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শুভ্রা চক্রবর্তীর আদালত এ মামলা আমলে নিয়ে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

এর আগে সোমবার (৫ ডিসেম্বর) হত্যার অভিযোগ এনে একই আদালতে দুজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা ৭/৮ জনকে আসামি করে এ মামলা করেন নিহতের বাবা আলী আকবর।

আদালতে বাদীপক্ষে আইনজীবী খাদেমুল ইসলাম ও মুহাম্মদ ইয়াছিন শুনানি করেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, আরিফ মাহমুদ সুমন চলতি বছরের ৯ জুন মোটরসাইকেল নিয়ে বাসা থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হন। পরদিন রাতে আহত হয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় পান তার পরিবারের সদস্যরা। এরপর তাকে ধানমন্ডি পপুলার হাসপাতালে নিয়ে মাথায় অপারেশন করা হয়। ২৫ জুলাই ধানমন্ডি পপুলার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সুমন মারা যান।

এর আগে হাসপাতালে ভর্তি অবস্থায় তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল থানায় আহতের পক্ষে মামলা করতে যান তার পরিবারের সদস্যরা। তবে পুলিশ মামলা না নিয়ে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় সুমন আহত হয়েছে- মর্মে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করিয়ে নেয়। তবে সেই জিডির তদন্তও হয়নি।

মৃত্যুর পর মরদেহ ময়নাতদন্ত না করে বাদীর কাছ থেকে সাদা কাগজে সই করিয়ে নেয় পুলিশ। যেখানে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় মৃত্যু ও ময়নাতদন্ত করবে না- মর্মে বাদীর কাছ থেকে চাপ দিয়ে লিখিত কপিতে সই করিয়ে নেওয়া হয়। পরে পুলিশ ঘটনা তদন্তের আশ্বাস দিলেও দীর্ঘদিনে তদন্ত না করায় নিহতের বাবা আদালতে এ মামলা করেন।

অভিযোগে আরও বলা হয়, সুমনের মাথায় ভারী কিছু দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। আসামিদের কাছ থেকে নিহত সুমনের মোবাইল ও মানিব্যাগ উদ্ধার করে পুলিশ বাদীকে ফেরত দেন। তবে বাদী তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বললেও তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

সুমন বেসরকারি সোনারগাঁও বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগ থেকে স্নাতক সম্পন্ন করে খণ্ডকালীন একটি প্রজেক্টে কম্পিউটার অপারেটর হিসেবে চাকরি করছিলেন। একইসঙ্গে স্নাতকোত্তরে পড়াশোনা করছিলেন।

তার বাবা আলী আকবর পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ে অফিস সহকারী পদে কর্মরত। সুমন পরিবারের সঙ্গে তেজগাঁও শিল্পাঞ্চল এলাকার ঢাকা পলিটেকনিক স্টাফ কোয়ার্টারে বসবাস করতেন।

জেএ/এএএইচ/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।