বন্ধ্যাত্ব দূরে রাখবে আখরোট

লাইফস্টাইল ডেস্ক
লাইফস্টাইল ডেস্ক লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:০৪ পিএম, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০

বাদামের গুণের কথা কম-বেশি সবারই জানা। আখরোটও এক ধরনের বাদাম। হুটহাট ক্ষুধা মেটাতে আখরোটের জুড়ি মেলা ভার। আখরোটের গুরুত্বের কথা হয়তো আমরা ততটা জানি না। বিশেষজ্ঞরা আখরোটের নানা উপকারিতার কথা জানিয়েছেন। শরীর ভালো রাখতে এটি বেশ কার্যকরী।

এক আউন্স আখরোটে ৪ গ্রাম প্রোটিন, ২ গ্রাম ফাইবার, ম্যাঙ্গানিজ, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস, জিঙ্ক, সেলেনিয়াম, ভিটামিন বি, প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন ই এবং ফ্যাট থাকে। আখরোটে থাকা উদ্ভিজ ওমেগা-৩ এএলএ প্রোটিনও অন্যান্য যেকোনো বাদামের তুলনায় ৫ গুণ বেশি থাকে। এমনটাই প্রকাশ করেছে ইন্ডিয়ান টাইমস। জেনে নিন আখরোট শরীরের কোন কোন উপকারে লাগে-

jagonews24

মানসিক অবসাদ ডেকে আনতে পারে নানা শারীরিক সমস্যা। আখরোট অবসাদ বা ডিপ্রেশন দূর করে। তাই মন ফুরফুরে রাখতে আখরোট খান নিয়মিত। এতে ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড থাকে, যা মস্তিস্কের কার্যক্ষমতা বাড়ায়। তবে একবারে খুব বেশি খেয়ে ফেলবেন না।

অ্যালঝাইমার্স নামক সমস্যা প্রকট হয়ে দাঁড়াচ্ছে দিনদিন। বয়স্ক লোকজনের ক্ষেত্রে ভুলে যাওয়ার প্রবণতা তৈরি হলে তাদের পাতে রাখুন এই বাদাম। এটি স্মৃতিশক্তি বাড়াতে বিশেষ কার্যকরী।

jagonews24

আখরোটে রয়েছে প্রচুর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এছাড়া থাকে ভিটামিন ই, মেলাটোনিন, ক্যারোটিনয়েডস। ত্বকের বলিরেখা কমাতে এবং বয়সের ছাপ দূর করতে প্রতিদিন পাতে রাখুন আখরোট।

হজমশক্তি ঠিক থাকলে তা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। আখরোট হজমশক্তি, বিপাকক্ষমতা বাড়ায়। শরীরের পক্ষে ভালো- এমন ব্যাকটেরিয়ার বৃদ্ধিতে সাহায্য করে আখরোট। তাই হজমশক্তি বাড়াতে আখরোট খান নিয়মিত।

jagonews24

‘বায়োলজি অব রিপ্রোডাকশন’-এর জার্নালে প্রকাশিত গবেষণাপত্রের দাবি, প্রতিদিন যদি অন্তত ৭৫ গ্রাম করে আখরোট খাওয়া যায়, তবে পুরুষদের বন্ধ্যাত্বের সমস্যা কমে। কারণ আখরোট বাড়িয়ে দেবে স্পার্ম কাউন্ট বা শুক্রাণুর সংখ্যা।

ওজন কমানোর ক্ষেত্রে ডায়েটে আখরোট রাখতে পারেন। আখরোট খেলে ঘনঘন ক্ষুধা পাওয়া বন্ধ হয়। এটি সামান্য রোস্ট করে সালাদের সঙ্গেও খাওয়া যায়। ম্যাঙ্গো স্মুদি, বানানা স্মুদির সঙ্গে মিশিয়েও খাওয়া যায়।

এইচএন/এএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]