জুবাইদা গুলশান আরার মৃত্যুতে সাহিত্য সংগঠনের শোক


প্রকাশিত: ০৩:২১ এএম, ২১ মার্চ ২০১৭
জুবাইদা গুলশান আরার মৃত্যুতে সাহিত্য সংগঠনের শোক

খ্যাতিমান কথাসাহিত্যিক জুবাইদা গুলশান আরার মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছে আন্তর্জাতিক সাহিত্য সংগঠন পিইএন (পেন)। সংগঠনের বাংলাদেশ সেন্টারের সভাপতি ও একুশে পদকপ্রাপ্ত কথাসাহিত্যিক ফরিদা হোসেন ও সংগঠনের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ফরিদা বেগম মনিসহ সংগঠনের বর্তমান কার্যনির্বাহী কমিটির নেতৃবৃন্দ শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেন। জুবাইদা গুলশান আরা পিইএন-এর বাংলাদেশ সেন্টারের সদস্য ছিলেন।

কমিটির এক শোক বার্তায় বলা হয়, জুবাইদা গুলশান আরা একজন মননশীল লেখক হিসেবে নারীদের অগ্রগতির পক্ষে তার শাণিত লেখনি এবং সাহিত্য, সমাজ ও নারীবিষয়ক বিভিন্ন সংগঠনের সঙ্গে জড়িত থেকে নারীদের জাগরণের পক্ষে কাজ করে যে সুনাম অর্জন করেছেন তা চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে। এছাড়া শিশু-কিশোরদের জন্য শিশুতোষ রচনাকেও তিনি প্রসিদ্ধ লাভ করেছেন।

একজন শিক্ষক হিসেবেও তিনি তার বহু ছাত্রছাত্রীকে গড়ে তুলেছিলেন। তার মৃত্যুতে দেশ একজন প্রতিভাবান ও গুণী সাহিত্যিককে হারালো। তার পরিবারবর্গের প্রতি আমরা গভীর সমব্যথী। আমরা জুবাইদা গুলশান আরার বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারবগের্র প্রতি গভীর সমবেদনা জানাচ্ছি।

জুবাইদা গুলশান আরা গত শতকের ষাটের দশক থেকে লেখালেখির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। সাহিত্যচর্চার জন্য ২০০৫ সালে সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় সম্মাননা একুশে পদকে ভূষিত হন তিনি। এছাড়া জসীম উদ্দীন পদকসহ আরও বিভিন্ন পদকে ভূষিত হন। কবিতা, গল্প, উপন্যাস ও নাটকসহ সাহিত্যের নানা শাখায় সফল বিচরণ ছিল তার।

উপন্যাস, ছোট গল্প, নাটক, শিশুতোষ ছড়া মিলিয়ে তার প্রকাশিত বইয়ের সংখ্যা ৫০-এর বেশি। শিশুদের জন্য প্রচুর ছড়া, কবিতা ছাড়াও তিনি বহু শিশুতোষ রচনা রেখে গেছেন। তিনি বাংলাদেশ লেখিকা সংঘের ভাইস চেয়ারম্যান ছিলেন। জাতীয় মহিলা সংস্থা, এশিয়াটিক সোসাইটি, বাংলা একাডেমি, পেন বাংলাদেশ, ঢাকা লেডিস ক্লাব, বাংলাদেশ মহিলা সমিতি প্রভৃতি সংস্থার সদস্য ছিলেন তিনি।

সাহিত্য, সমাজ এবং নারীবিষয়ক বিভিন্ন সংগঠনের সঙ্গে জড়িত থেকে তিনি নারীদের অগ্রগতি এবং নারী জাগরণের পক্ষে কাজ করেছেন। গত রোববার বেলা আড়াইটায় রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিলাহে ওয়া ইন্না ইলাহে রাজিউন)।

এফএইচএস/বিএ