EN
  1. Home/
  2. দেশজুড়ে

তাজরীনের সেদিনের আগুন আজও পোড়াচ্ছে

উপজেলা প্রতিনিধি | সাভার (ঢাকা) | প্রকাশিত: ১১:০৯ এএম, ২৪ নভেম্বর ২০২০

দেশের পোশাক খাতের ভয়ংকর স্মৃতির নাম তাজরীনের অগ্নিকাণ্ড। সেদিনের ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ৮ বছর পরও ক্ষত এতটুকুও শুকায়নি আহত ও নিহতদের স্বজনদের।

২০১২ সালের এইদিনে সাভারের আশুলিয়ার ইয়ারপুর ইউনিয়নের নিশ্চিন্তপুর এলাকায় অগ্নিকাণ্ডে দগ্ধ হয়ে মৃত্যুবরণ করেন অন্তত ১১৩ জন শ্রমিক। আহত হন আরও অনেকে। সেদিনের আগুনের লেলিহান শিখা আজও ভয়াবহ হয়ে চোখে ফেরে ভুক্তভোগী শ্রমিক ও তাদের পরিবারের কাছে।

স্বজন হারানোর বেদনা বয়ে বেড়াচ্ছে নিহতদের পরিবার। আর আহতরা বয়ে বেড়াচ্ছেন সেই ক্ষত। নিদারুণ কষ্টে আছে ভুক্তভোগীদের পরিবার।

তাজরীনে অগ্নিকাণ্ডের ৮ বছর পূর্তিতে মঙ্গলবার সকালে নিহতদের পরিবার, আহত শ্রমিক ও বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা তাজরীন গার্মেন্টসের ফটকের সামনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন।

Tazrin-3

এ সময় ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসন ও অবিলম্বে হত্যা মামলার নিষ্পত্তির দাবি জানিয়ে মানববন্ধন ও মিছিল বের করেন বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা। পরে নিহতদের আত্মার মাগফিরাত কামনা ও নীরবতা পালন করা হয়।

টেক্সটাইল গার্মেন্টস ওয়ার্কার্স ফেডারেশনের সভাপতি তপন সাহা সমাবেশে বলেন, আজ তাজরিন ফ্যাশন অগ্নিকাণ্ডের আট বছর পূর্তি হলো। ওই দিন অনেক শ্রমিক হতাহত হয়েছেন। এখনও ক্ষতিগ্রস্ত শ্রমিক ও তার পরিবারের সদস্যরা মানবেতর জীবনযাপন করছেন। নিহত শ্রমিকদের পরিবার ও আহত শ্রমিকদের আজও পুনর্বাসনে কোনো উদ্যোগ নেয়নি সরকার ও বিজিএমইএসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

গার্মেন্টস শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাংগঠনিক সম্পাদক খায়রুল মামুন মিন্টু বলেন, ২৪ নভেম্বর আগুন লাগার পর কারখানা কর্তৃপক্ষ গেটে তালা লাগিয়ে শতাধিক শ্রমিককে পুড়িয়ে হত্যা করে। এ ঘটনার আট বছর পার হলেও দোষীদের শাস্তি নিশ্চিত করা হয়নি। এতে সরকারের সদিচ্ছার বিষয়টি স্পষ্ট।

Tazrin-3

তিনি বলেন, এ কারণে পরবর্তীতে রানা প্লাজা ধসে আবারো হতহতের ঘটনা ঘটে। এছাড়া গত দুই মাসের বেশি সময় ধরে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে তাজরিনে প্রায় অর্ধশত শ্রমিক দাবি আদায়ে অনশন করলেও সরকার ও সংশ্লিষ্টরা কর্ণপাত করছে না।

তিনি আরও বলেন, অবিলম্বে তাজরিনের ক্ষতিগ্রস্ত শ্রমিকদের পুনর্বাসন ও ক্ষতিপূরণ নিশ্চিত করা হোক। পুড়ে যাওয়া ভবনটি সংস্কার করে শ্রমিকদের পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করারও দাবি জানাই।

এদিকে যেকোনো অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে তাজরীন গার্মেন্টস ও এর আশপাশের এলাকায় নেয়া হয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা। মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ।

আল-মামুন/এফএ/পিআর