দেশের বিভিন্ন স্থানে দুদকের অভিযান

বিশেষ সংবাদদাতা প্রকাশিত: ০৭:২৯ পিএম, ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯
দেশের বিভিন্ন স্থানে দুদকের অভিযান

কুমিল্লায় অতি দরিদ্রদের জন্য বিতরণযোগ্য চাল আত্মসাতের অভিযোগে অভিযান পরিচালনা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। দুদক অভিযোগ কেন্দ্রে (হটলাইন-১০৬) আসা অভিযোগের প্রেক্ষিতে সমন্বিত জেলা কার্যালয় কুমিল্লার সহকারী পরিচালক এইচ এম আখতারুজ্জামানের নেতৃত্বে বৃহস্পতিবার এ অভিযান চালানো হয়।

দুদক টিমের এ অভিযানকালে বারপারা ইউনিয়ন পরিষদে চাল বিতরণের দায়িত্বপ্রাপ্ত ডিলার গুদাম তালাবদ্ধ রেখে পালিয়ে যান। পরে টিম ইউপি চেয়ারম্যানের সহায়তায় গুদামে প্রবেশ করে ২৮২ জনের ভিজিএফ কার্ড এবং খাদ্য অধিদফতরের সিল সম্বলিত ১১৬ বস্তা চাল উদ্ধার করে। এসব চাল বিতরণ না করে আত্মসাত করা হচ্ছিল মর্মে প্রমাণ পায় দুদক টিম।

টিম ২৮২টি কার্ডের তালিকা করে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের কাছে সোপর্দ করে এবং কার্ডধারী ব্যক্তিদের কাছে পৌঁছে দিয়ে দুদককে অবহিত করার অনুরোধ করে। একই সাথে অভিযুক্ত ডিলারের ডিলারশীপ বাতিলের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য সুপারিশ করা হয়।

এছাড়া গ্রাহকদের পাসপোর্ট সেবা প্রদানে অনিয়ম ও হয়রানির অভিযোগে রাজশাহী পাসপোর্ট অফিসে অভিযান চালিয়েছে দুদক। দুদক হটলাইনে আসা একাধিক অভিযোগের প্রেক্ষিতে সমন্বিত জেলা কার্যালয় রাজশাহীর সহকারী পরিচালক নাজমুল হুসাইনের নেতৃত্বে এ অভিযান চালানো হয়।

অভিযানকালে টিম উপস্থিত সেবাপ্রত্যাশীদের সাথে কথা বলে। গত দেড় মাস আগে একই অফিসে পরিচালিত দুদকের অভিযানের প্রেক্ষিতে পাসপোর্ট অফিসের কার্যক্রম অনেকটাই স্বচ্ছতা এবং ভোগান্তি ছাড়া হচ্ছে বলে সেবাপ্রত্যাশীরা অভিমত দেন। উপস্থিত জনসাধারণ পাসপোর্ট অফিসসহ জনঘনিষ্ট সেবা প্রতিষ্ঠান সমূহে দুদকের অভিযান পরিচালনার উদ্যোগকে স্বাগত জানান।

এছাড়া রাজধানীর মিরপুর বোটানিক্যাল গার্ডেনে সংস্কারাধীন পুকুরে টেন্ডার আহ্বান ছাড়াই মাছ শিকার করার অভিযোগে এবং মাগুরায় ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে হতদরিদ্রদের জন্য গৃহনির্মাণ প্রকল্পের ঘর প্রদানে অনিয়মের অভিযোগে যথাক্রমে প্রধান কার্যালয় এবং সমন্বিত জেলা কার্যালয় যশোর থেকে দুটি পৃথক অভিযান পরিচালিত হয়েছে।

এমইউ/আরএস/পিআর

সর্বশেষ - জাতীয়

জাগো নিউজে সর্বশেষ

জাগো নিউজে জনপ্রিয়