EN
  1. Home/
  2. জাতীয়

শরীরে গজানো গাছ নিয়ে ট্রাকটি যাচ্ছে কোথায়?

নিজস্ব প্রতিবেদক | প্রকাশিত: ০৯:৫৪ এএম, ২৩ নভেম্বর ২০২০

দীর্ঘদিনের অবহেলায় দেবে গেছে ছাদ, দরজা ভাঙা, সিট, স্টিয়ারিং হুইল। কোনো কিছুই ঠিকঠাক নেই। বডিতেও জমেছে ময়লার স্তুপ। পুরো শরীর জুড়ে গজিয়েছে লতা-গুল্ম। বলা হচ্ছিল রাজধানীর আগারগাঁওয়ে শেরেবাংলা নগর থানার ডাম্পিংয়ে থাকা গাড়িগুলোর কথা।

ভাঙাচোরা, বডিতে লতাপাতা গজিয়ে যাওয়া এমন যানবাহন ব্যস্ত সড়কে চলতে দেখলে একটু অবাকই হওয়ার কথা। রবিবার (২২ নভেম্বর) বিকেলে আগারগাঁওয়ের ব্যস্ত সড়কে এমন দুটি ট্রাক দেখে গোল গোল চোখে তাকিয়ে দেখেছেন পাশে থাকা পথচারী-যাত্রী-চালকরা।

jagonews24

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, আগারগাঁওয়ের সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের পাশে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনের সদর দফতরের জন্য জায়গা নির্ধারিত রয়েছে। একসময় তার পাশেই ছিল শেরেবাংলা নগর থানা। কিছুদিন আগে থানার ভবন স্থানান্তর করা হয়েছে। কিন্তু থানার পাশে করা গাড়ি ডাম্পিংয়ের জায়গাটা এখনও রয়ে গেছে।

সেখানে এখনও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর জব্দ করা বিভিন্ন ধরনের যানবাহন ফেলে রাখা হয়। বর্তমানে সেখানে কয়েকশ মোটরসাইকেল, পিকআপ, ট্রাকসহ বিভিন্ন ধরনের যানবাহন ডাম্পিং করা আছে। দীর্ঘদিন ধরে ডাম্পিংয়ে অলস পড়ে থাকায় গাড়িগুলো রোদে পুড়ে, বৃষ্টিতে ভিজে, জং ধরে, উইপোকায় খেয়ে, লতাপাতায় ছেয়ে নষ্ট হচ্ছে।

jagonews24

এই গাড়িগুলোর ভেতর থেকেই একটি ট্রাক ও একটি লরি সরিয়ে নিচ্ছিল পুলিশ। ডাম্পিং স্টেশন থেকে ট্রাকটি বের করে রাস্তায় রাখা হলে স্বাভাবিকভাবেই সেটি পথচারীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে।

সেখানে কর্মরত এক কনস্টেবল জানান, রাজধানীর বিভিন্ন থানায় জব্দ করা যানবাহন এখানে ডাম্পিং করা হয়। এসব যানবাহনের মামলা যখন আদালতে ওঠে, তখন প্রয়োজনে সেগুলো আদালতে হাজির করতে হয়। এদিনও তেমনি ডিবির (গোয়েন্দা পুলিশ) জব্দ করা দুটি গাড়ি নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সম্ভবত এই গাড়িদুটিকেও মামলার কার্যক্রমের আদালতে নেয়া হচ্ছে।

পিডি/এসএস/জেআইএম