EN
  1. Home/
  2. জাতীয়

ফেনীতে দগ্ধ মা-মেয়ে বার্ন ইনস্টিটিউটের আইসিইউতে

ঢামেক প্রতিবেদক | প্রকাশিত: ০১:২৭ পিএম, ০৬ মার্চ ২০২১

ফেনীতে নিজ বাড়িতে বিস্ফোরণে দগ্ধ মা ও দুই মেয়েকে রাজধানীর শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে আনা হয়েছে। শনিবার (৬ মার্চ) ভোরে তাদেরকে ভর্তি করা হয়।

দগ্ধরা হলেন- মেহেরুন্নেসা (৩৮) ও তার দুই মেয়ে হাফসা ইসলাম (১৫) ও ফারহা ইসলাম (১৮)। তাদের মধ্যে মেহেরুন্নেসার শরীরের ৪৬ ভাগ দগ্ধ হয়েছে। আর ছোট মেয়ে হাফসার শরীরের ২৭ শতাংশ পুড়ে গেছে। তবে শঙ্কামুক্ত (৫ শতাংশ দগ্ধ) হওয়ায় বড় মেয়ে ফারহা ইসলামকে রিলিজ করা হয়েছে।

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ইনস্টিটিউটের আবাসিক চিকিৎসক পার্থ শংকর পাল এ তথ্য জানিয়েছেন। তিনি জানান, মেহেরুন্নেসা ও তার মেয়ে হাফসার শ্বাসনালী পুড়ে গেছে। তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক। মা ও মেয়েকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) পাঠানো হয়েছে।

দগ্ধের আত্মীয় শহিদুল ইসলাম জানান, মেহেরুন্নেসার স্বামী মাহবুবুল ইসলাম প্রবাসী। ফেনী সদরের এস এস কে রোডের একটি ছয় তলা বাসায় মা ও দুই মেয়ে ভাড়া থাকতেন। হাফসা ইসলাম স্থানীয় হলিক্রিসেন্ট স্কুলে পড়াশোনা করছে। আর ফারাহ ইসলাম এবার উচ্চ মাধ্যমিক পাশ করেছেন।

তিনি জানান, শুক্রবার (৫ মার্চ) রাত নয়টার দিকে ওই বাসার গ্যাসের চুলা লিকেজ ছিল। সেখান থেকে গ্যাস বের হচ্ছিল। এসময় মশা মারার জন্য ইলেকট্রিক ব্যাট চালু করতেই সেখান থেকে স্পার্ক হয়ে বিস্ফোরণ ঘটে। এতে মা ও দুই মেয়ে দগ্ধ হন।

এএএইচ/এমএস