EN
  1. Home/
  2. রাজনীতি

আমরাই দেশের মানুষকে সুশাসন দেব : জি এম কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক | প্রকাশিত: ০৫:৪৭ পিএম, ২৬ আগস্ট ২০২০

জাতীয় পার্টির (জাপা) চেয়ারম্যান ও বিরোধী দলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ (জি এম) কাদের বলেছেন, মহামারি করোনা এবং বন্যার কারণে দেশে অর্থনৈতিক স্থবিরতা সৃষ্টি হয়েছে। অনেক মানুষ চাকরি হারিয়েছে। অর্থনৈতিক স্থবিরতার কারণে দেশে আইনশৃঙ্খলা ও রাজনৈতিক অস্থিরতা সৃষ্টি হতে পারে। এমন অস্থিতিশীল পরিস্থিতিতে কোনো অপশক্তি যেন ফায়দা লুটতে না পরে সে জন্য জাতীয় ঐক্য সৃষ্টি করতে হবে। এতে সরকারকেই উদ্যোগ নিতে হবে। আমরা সরকারকে সব ধরনের সহায়তা করতে প্রস্তুত রয়েছি।

বুধবার (২৬ আগস্ট) রাজধানীর বনানীর জাপা চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে মানিকগঞ্জ জেলা জাতীয় পার্টির নেতাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এ কথা বলেন।

জি এম কাদের আরও বলেন, দেশের রাজনৈতিক সংস্কৃতি পরিবর্তন হয়েছে। মানুষ এখন আর হরতাল ও ধ্বংসাত্মক কর্মসূচি গ্রহণ করে না। ফলে অনেক রাজনৈতিক দলই হারিয়ে যাচ্ছে। শুধু কর্মসূচি নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে জাপাসহ তিনটি রাজনৈতিক দল। তাই আগামী দিনের রাজনৈতিক পরিস্থিতি মোকাবিলায় জাপাকে আরও শক্তিশালী করতে হবে।

তিনি বলেন, দেশের মানুষ আওয়ামী লীগ, বিএনপি ও জাপার রাজনীতি এবং রাষ্ট্র পরিচালনার সাফল্য বিচার বিশ্লেষণ করছে। তাই আগামী দিনে জাপার উজ্জ্বল ভবিষ্যত অপেক্ষা করছে।

জাপা চেয়ারম্যান বলেন, নির্বাচনের মাধ্যমে গণমানুষের কাছে যাওয়া যায়। তাই জাতীয় পার্টি সব নির্বাচনে অংশ নিয়ে পল্লীবন্ধু এইচ এম এরশাদের আদর্শ ও কর্মসূচি তুলে ধরবে। আগামী নির্বাচনে তিনশ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার প্রস্তুতি নিয়েই এগিয়ে যাচ্ছে জাপা।

তিনি বলেন, মানুষের সামাজিক, সাংস্কৃতিক, অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক মুক্তি দিতেই জাপার রাজনীতি। আমরা সামাজিক ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করবো। আমরাই দেশের মানুষকে সুশাসন দেব।

এ সময় জাপা মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু বলেন, দেশের মানুষ পরিবর্তন চায়, পরিবর্তনের জন্য মানুষ উন্মুখ হয়ে রয়েছে। পল্লীবন্ধু আইন করে নারী নির্যাতন ও এসিড সন্ত্রাসসহ সব অপরাধ তৎপরতা বন্ধ করেছিলেন। জাপার শাসনামলে টেন্ডারবাজি, দলবাজি, খুন-গুম ছিল না। জাতীয় পার্টির ৯ বছরের শাসনামল ছিল দেশের ইতিহাসের শ্রেষ্ঠ সময়, বাংলাদেশের স্বর্ণযুগ। দেশের মানুষ জাপার শাসনামলে ফিরে যেতে চায়। তাই জাপাকে আরও শক্তিশালী করে সাধারণ মানুষের প্রত্যাশা পূরণ করা হবে।

এইউএ/এএইচ/এমএস