তামিমকে নিয়ে চিন্তার কিছু নেই : মাশরাফি

ক্রীড়া প্রতিবেদক প্রকাশিত: ০৬:৪০ পিএম, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯
তামিমকে নিয়ে চিন্তার কিছু নেই : মাশরাফি

ইংল্যান্ডের মাটিতে ওয়ানডে বিশ্বকাপ এবং শ্রীলঙ্কা সফরের তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ- একদমই ভালো করতে পারেননি দেশসেরা ওপেনার তামিম ইকবাল। নিজের মানে তো নয়ই, দলের অন্যান্যদের তুলনায়ও বেশ নিষ্প্রভ ছিলেন তিনি। বিশ্বকাপের পর আশা ছিলো শ্রীলঙ্কায় হয়তো ফর্মে ফিরবেন তামিম। কিন্তু বিধিবাম!

লঙ্কানদের বিপক্ষে বিশ্বকাপের চেয়েও ভয়াবহ ব্যাটিং করেছেন তামিম। যে কারণে নিজ থেকেই বিরতি নেন ক্রিকেট থেকে। খেলেননি আফগানিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র টেস্ট ও ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টি সিরিজ। ভারত সফর দিয়ে জাতীয় দলে ফেরার কথা থাকলেও শেষমুহূর্তে পারিবারিক কারণ দেখিয়ে সরে দাঁড়ান তিনি।

যার ফলে প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটের সঙ্গে বেশ একটা দূরত্বই চলে আসে তামিমের। তবে মাঝে খেলেছিলেন জাতীয় ক্রিকেট লিগের একটি ম্যাচ। সেখানে ভালো শুরু করলেও ইনিংস বড় করতে পারেননি তামিম। রানখরায় থাকার এ ধারা বজায় থাকলো বিপিএলেও।

তারকাসমৃদ্ধ ঢাকা প্লাটুনের হয়ে প্রথম ম্যাচে মাত্র ৫ রানে আউট হয়েছেন তামিম। অথচ বিশ্রাম শেষে মাঠে ফিরে বিশেষ অনুশীলন করেছেন তিনি। করেছেন ফিটনেস ট্রেনিং থেকে শুরু করে সব কিছু।

বিপিএল শুরুর আগে নিজেকে তৈরি করার জন্য তামিম সবার আগে অনুশীলন শুরু করেন। ঢাকার কোচ সালাউদ্দিনের অধীনে সবার আগে তামিম বিশেষ অনুশীলন করে যান। নিজেকে প্রস্তুত করে বিপিএলে খেলার জন্য। পেছনে ফেলে আসা খারাপ সময় কাটিয়ে ওঠার আপ্রাণ চেষ্টা লক্ষ্য করা গেছে তার অনুশীলনে।

কিন্তু কাজের কাজ হয়নি কিছুই। এতো কিছুর পরও প্রথম ম্যাচে তার সংগ্রহ ৪ বলে ৫ রান। উইকেটে থাকতে পেরেছেন মাত্র ১.৫ ওভার। তামিমের মতো নির্ভরযোগ্য ব্যাটসম্যানের নিষ্প্রভতা ভুগিয়েছে ঢাকা প্লাটুনকেও। তামিমসহ টপঅর্ডার ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতার দিনে আগে ব্যাট করে ১৩৩ রানের বেশি করতে পারেনি ঢাকা। পরে ম্যাচ হেরেছে ৯ উইকেটের বড় ব্যবধানে।

অধিনায়ক মাশরাফির মতে, দলের এত বড় পরাজয়ে এখনই চিন্তার মতো কিছু নয় কিংবা গুরুতর আলোচনারও সময় নয়। লম্বা টুর্নামেন্টে সামনের ম্যাচগুলোতে ঘুরে দাঁড়ানোই তার লক্ষ্য।

ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে ঢাকার অধিনায়ক মাশরাফি বলেন, ‘আজকের উইকেটটা ভালো ছিলো, মিরপুরে সচরাচর এমন উইকেট পাওয়া যায় না। আমাদের স্কোরও ১৬০ করার দিকেই ছিলাম। পরপর দুই-তিনটা রানআউট ক্ষতি করে দিয়েছে। আমার মনে হয় এখনই চিন্তার কিছু নেই কিংবা গুরুতর আলোচনা করারও সময় না।’

দল হিসেবে ঢাকার এটি প্রথম ম্যাচ, তাই এক ম্যাচের ফলাফলে না হয় গুরুতর চিন্তার কিছু হয়নি। কিন্তু ব্যাটসম্যান তামিম ইকবালের অফফর্ম চলে আসছে সেই বিশ্বকাপ থেকে। যার পর থেকে জাতীয় লিগ ও বিপিএলের প্রথম ম্যাচেও রান পাননি তিনি। এ বিষয়ে কী ভাবছেন মাশরাফি?

এমন প্রশ্নের বিপরীতে মাশরাফি ব্যাট ধরলেন তামিমের হয়ে। মনে করিয়ে দিলেন তামিম বরাবরই প্রমাণ করেছেন নিজের সামর্থ্য। তাই তাকে নিয়ে চিন্তার কিছু নেই। মাশরাফির ভাষ্যে, ‘আমার মনে হয় না তামিমকে নিয়ে বেশি চিন্তা করার আছে। গত আসরেও তামিম এমন করেই প্রায় পুরোটা টুর্নামেন্ট খেলেছে। অথচ ট্রফি জেতানো ইনিংসটা কিন্তু ওর ব্যাট থেকেই এসেছে। বারবার প্রমাণ করেছে তামিম। এখন ব্যাপারটা হলো, পুরো দল এক হয়ে খেলা। যেটা আজকে হয়নি।’

প্রথম ম্যাচে ঢাকা প্লাটুনের মিডল অর্ডার সাজানো হয়েছে দেশি খেলোয়াড়দের প্রাধান্য দিয়ে। থিসারা পেরেরা, শহীদ আফ্রিদির আগে নামার সুযোগ পেয়েছেন জাকের আলি, আরিফুল হকরা।

এতে করে দলের ভারসাম্যে ব্যাঘাত ঘটে কি না জানতে চাওয়া হলে মাশরাফির জবাব, ‘না! ভারসাম্য ঠিক আছে। ইয়ংস্টার যারা আছে, বিশেষ করে বাংলাদেশিদের জন্য দারুণ সুযোগ। আমি মনে করি আমাদের দলে এই সুযোগটা আছে কিছু করে দেখানোর। যেহেতু ঢাকা প্লাটুন আশাই করে যে সেমিফাইনাল খেলবে, তাই চাপ থাকবেই। এই পরিস্থিতিতে ব্যাটিং করাটা আমি মনে করি, ওদের জন্য দারুণ সুযোগ। বিশেষ করে বিভিন্ন দেশের বোলারদের কীভাবে খেলছে। অধিনায়ক হিসেবে আমি এটাই দেখতে চাই ওরা চাপের মুখে কীভাবে খেলছে।’

এসএএস/এমএমআর/এমকেএইচ

সর্বশেষ - খেলাধুলা

জাগো নিউজে সর্বশেষ

জাগো নিউজে জনপ্রিয়