EN
  1. Home/
  2. খেলাধুলা

‘ভারতীয় ক্রিকেটার’ পরিচয় মুছে দিয়েছেন রোহিত!

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশিত: ১২:৩৪ পিএম, ২৮ অক্টোবর ২০২০

ভারতীয় দলে কি অন্তর্কলহ শুরু হলো? রোহিত শর্মার অস্ট্রেলিয়া সফর থেকে বাদ পড়া এবং মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের হয়ে নেট প্র্যাকটিস নিয়ে সরগরম সোশ্যাল মিডিয়া। ভক্ত সমর্থকদের মনে একটা সন্দেহ দানা বেঁধেছে- চোট নয়, রোহিতকে ইচ্ছে করেই ছেঁটে ফেলা হয়েছে দল থেকে।

এই সন্দেহের পালে আরও জোর হাওয়া লাগালো নতুন এক খবর। রোহিত নাকি তার টুইটার আর ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট থেকে ‘ভারতীয় ক্রিকেটার’ পরিচয়টাই মুছে দিয়েছেন। যদিও এই বিষয়টি নিয়ে ভক্তদের মধ্যে দুটি ভাগ হয়ে গেছে। কেউ কেউ দাবি করছেন, এমন কোনো লেখা ছিলই না তার অ্যাকাউন্টে।

আসন্ন অস্ট্রেলিয়া সফরে তিন ফরমেটের মধ্যে একটিতেও রাখা হয়নি রোহিতকে। আইপিএল চলাকালেই হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটে পড়েছেন মারকুটে ওই ওপেনার। এইটুকু পর্যন্ত ঠিক ছিল। কিন্তু মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স ফ্র্যাঞ্চাইজি মঙ্গলবার রোহিতের নেট প্র্যাকটিসের একটি ভিডিও আপলোড করার পরই শুরু হয় নতুন করে আলোচনা।

গত ১৮ অক্টোবর কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের বিপক্ষে ম্যাচের পর আর রোহিত মুম্বাইয়ের হয়ে মাঠে নামতে পারেননি। ২৩ অক্টোবর চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষ ম্যাচের কয়েক মিনিট আগে জানানো হয়, পাঞ্জাবের বিপক্ষে বাঁ পায়ের হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটে পড়েন রোহিত।

এর মধ্যে বিসিসিআই অস্ট্রেলিয়া সফরের স্কোয়াড ঘোষণা করে দলের এই সহ-অধিনায়ককে ছাড়াই। অথচ মুম্বাই ফ্র্যাঞ্চাইজি এক টুইট ভিডিওর মাধ্যমে জানিয়েছে, চোটের পর আবুধাবিতে ব্যাটিং অনুশীলনেও নেমেছেন এই ওপেনার।

এই ভিডিওটি প্রকাশ্যে আসার পরই সরব সোশ্যাল মিডিয়া। অনেকেই দাবি করছেন, নোংরা রাজনীতির শিকার হয়েছেন রোহিত। কেউ কেউ তো পরিষ্কার করে লিখেই দিয়েছেন, অধিনায়ক বিরাট কোহলির সঙ্গে দ্বন্দ্বটা এখন প্রকাশ্য রূপ পেল।

এর মধ্যে গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে, টুইটার এবং ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট থেকে ‘ভারতীয় ক্রিকেটার’ পরিচয় মুছে দিয়েছেন রোহিত। এই ব্যাপারটা নিয়েও ভক্তদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।

 

jagonews24

মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের প্র্যাকটিস সেশনে রোহিতকে দেখে সুনীল গাভাস্কারের মতো কিংবদন্তিও মুখ খুলেছেন। তার কথা, যা কিছুই হোক সেটা পরিষ্কারভাবে জানার অধিকার রাখেন ভক্ত-সমর্থকরা এবং ভারতীয় বোর্ডের তা পরিষ্কার করা উচিত।

কথায় আছে-যা রটে, তা কিছুটা বটে! ভারতীয় দলের মধ্যে কিছু একটা যে চলছে, সেটা আন্দাজ করাই যাচ্ছে। বোর্ডের পক্ষ থেকে পরিষ্কার বার্তা না আসলে এই জল আরও ঘোলাই হবে।

এমএমআর/এমকেএইচ