EN
  1. Home/
  2. খেলাধুলা

ফ্রান্সের কাছে হেরে ‘চ্যাম্পিয়ন’ পর্তুগালের বিদায়

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশিত: ০৯:৪৯ এএম, ১৫ নভেম্বর ২০২০

উয়েফা নেশনস লিগের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন তারা। ২০১৯ সালে ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপ জেতার পর ২০১৯ সালে নেশনস লিগের আসরের শিরোপাও ঘরে তুলেছিল পর্তুগাল। কিন্তু নতুন এই টুর্নামেন্টের শিরোপা ধরে রাখতে পারছে না তারা। ২০২০ সালের নেশনস লিগের মূলপর্বে ওঠার আগেই বাদ পড়ে গেল তারা।

শনিবার রাতে ‘এ’ লিগের তিন নম্বর গ্রুপের পঞ্চম রাউন্ডের ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল ফ্রান্স ও পর্তুগাল। দুই দলের প্রথম ম্যাচটি হয়েছিল গোলশূন্য ড্র। যে কারণে এ ম্যাচের ফলাফলের গুরুত্ব ছিল অনেক বেশি। কেননা এ ম্যাচের সমীকরণ ছিল, জয়ী দল পাবে ফাইনালসের টিকিট আর শেষ হয়ে যাবে হেরে যাওয়া দলের সম্ভাবনা।

এমন সমীকরণ মাথায় রেখে খেলতে নেমে পর্তুগালের মানসিকভাবে এগিয়ে থাকার সাহস ছিল ঘরের মাঠে ম্যাচ হওয়ায়। কিন্তু তারা সেটি তেমনভাবে কাজে লাগাতে পারেনি। ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে একটিমাত্র গোল করে জয়ের তুলে নেয়ার পাশাপাশি পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষস্থান ও নেশনস লিগের ফাইনালের টিকিটও নিশ্চিত করেছে সফরকারী ফ্রান্স।

১-০ গোলের এ জয়ের পর পাঁচ ম্যাচে ১৩ পয়েন্ট নিয়ে এককভাবে শীর্ষে উঠে গেছে ফ্রান্স। সমান ম্যাচে পর্তুগালের সংগ্রহ ১০ পয়েন্ট। নিজেদের শেষ ম্যাচে ফ্রান্স হারলে এবং পর্তুগাল জিতলে দুই দলের পয়েন্টই হবে সমান ১৩। কিন্তু মুখোমুখি লড়াইয়ে এগিয়ে থাকায় শীর্ষেই থাকবে ফ্রান্স। যে কারণে এক ম্যাচ আগেই নিশ্চিত হয়ে গেছে পর্তুগালের শিরোপা দৌড় থেকে বিদায়।

অথচ ফ্রান্সের বিপক্ষে ঘরের মাঠের ম্যাচটিতে আধিপত্য বিস্তার করেই খেলেছে পর্তুগিজরা। একের পর আক্রমণ সাজিয়েছে ম্যাচের দুই অর্ধেই। কিন্তু কাজের কাজ গোল তারা পায়নি। দলের সবচেয়ে বড় তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর বেশ কয়েকটি জোরালো প্রচেষ্টা নাকচ করে দেন ফ্রান্সের গোলরক্ষক হুগো লরিস।

তবে কম যায়নি ফ্রান্সও। কঠিন পরীক্ষা নিয়েছে পর্তুগালের রক্ষণের। প্রথমার্ধের পুরোটা সময় নিজেদের জাল অক্ষত রাখেন পর্তুগিজ গোলরক্ষক রুই প্যাট্রিসিও। কিন্তু ভুল করে বসেন দ্বিতীয়ার্ধের শুরুর দিকেই। সেই ভুলের সুযোগ নিয়ে দলকে এগিয়ে দেন এনগোলো কান্তে।

ম্যাচের ৫৩ মিনিটের সময় আদ্রিয়ান র‍্যাবিয়টের নিরীহ এক শট ঠেকাতে গিয়েও গ্লাভসছাড়া করে ফেলেন প্যাট্রিসিও। ফলে খালি জায়গায় পেয়ে যান কান্তে। সহজ সুযোগ পেয়ে আলতো টোকায় জয়সূচক গোলটি করেন কান্তে।

এসএএস/জেআইএম