স্বাস্থ্যমন্ত্রী দুর্নীতিবাজ আমলাদের পক্ষেই কথা বলেছেন : ন্যাপ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:৩৪ পিএম, ২০ মে ২০২১ | আপডেট: ০৩:৩৯ পিএম, ২০ মে ২০২১

পেশাগত দায়িত্ব পালনের সময় সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে হেনস্তা, নির্যাতন ও মামলার বিষয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বক্তব্যকে অনভিপ্রেত, অগ্রহণযোগ্য ও হাস্যকর বলে মন্তব্য করেছে বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ।

বৃহস্পতিবার (২০ মে) গণমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে পার্টির চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গানি ও মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুঁইয়া এ মন্তব্য করেন।

তারা বলেন, সরকারের রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ ও গোপন তথ্য বা ফাইল নথি কোনও একান্ত সচিবের টেবিলে অরক্ষিত অবস্থায় পড়ে থাকে না, থাকতে পারে না। আর যদি স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বক্তব্য সত্য হিসেবে ধরেই নেই, তাহলে এটাই প্রমাণ হয় যে, মন্ত্রী এবং তার মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা অযোগ্য ও ব্যর্থ। আর মন্ত্রী সেই সকল অযোগ্য-ব্যর্থদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ না করে প্রকারান্তরে দেশে দুর্নীতিবাজ ব্যবসায়ী-আমলাদের যে অশুভ আঁতাত গড়ে উঠেছে তার পক্ষেই কথা বলেছেন।

বাংলাদেশ ন্যাপ নেতৃদ্বয় বলেন, মন্ত্রীর জানা থাকা উচিত, স্বাস্থ্য অধিদফতর এদেশের বেহাল স্বাস্থ্য ব্যবস্থার সকল অনিয়ম, অব্যবস্থাপনা ও মহা দুর্নীতির আঁতুড়ঘর। টপ টু বটম সবাই দুর্নীতির সিস্টেমে আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে গেছে। সর্বোচ্চ নীতিনির্ধারক মাননীয় মন্ত্রী মহোদয় যে চরম ব্যর্থ সেটা দেশবাসী করোনা দুর্যোগময় সময়ে একাধিকবার প্রত্যক্ষ করেছে। আর স্বরাষ্ট্র ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা বিষয়ক কিছু সংবেদনশীল তথ্য ছাড়া জনস্বার্থে যেকোনো মন্ত্রণালয়ের যেকোনো তথ্য-উপাত্ত জনগণের জানার ও প্রকাশ করার পূর্ণ অধিকার রয়েছে।

তারা বলেন, দেশের জনগণ ভালো করেই জানে এই করোনাকালে সরকারি অর্থ নিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে কী পরিমাণ দুর্নীতি আর লুটপাট হয়েছে। আর সাহসী সাংবাদিক রোজিনা ইসলাম সেই সত্যকে তার কলমের মাধ্যমে দেশবাসীর সামনে তুলে ধরেছেন। যাতে করে সরকারও দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারে। আর এই দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে লেখার কারণেই তাকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের আক্রোশের শিকারে পরিণত হতে হয়েছে এটি দিবালোকের মত স্পষ্ট।

যে সকল আমলা-কর্মচারীরা রোজিনা ইসলামকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেছে তাদের শাস্তি নিশ্চিত করার দাবি জানিয়ে ন্যাপ নেতৃদ্বয় বলেন, সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা দিয়ে নয়, বরং দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিলে দেশ-জাতি ও সরকার উপকৃত হবে।

তারা রোজিনা ইসলামকে হয়রানিতে জড়িত ব্যক্তিদের শাস্তির আওতায় আনা এবং তার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত অফিসিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান।

কেএইচ/জেডএইচ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]