৭২ ঘণ্টার মধ্যে হয়রানির নিরপেক্ষ তদন্ত চান সাংবাদিকরা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:০৩ পিএম, ৩১ আগস্ট ২০২১

আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে নির্বাচন কমিশন (ইসি) বিটে কর্মরত সাংবাদিকদের সঙ্গে পুলিশ ও ইসির কর্মকর্তাদের অসৌজন্যমূলক আচরণসহ সব ধরনের হয়রানিমূলক ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি করেছেন সাংবাদিকরা।

মঙ্গলবার (৩১ আগস্ট) দুপুরে আগারগাঁও নির্বাচন ভবনের সামনে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে এ দাবি জানানো হয়।

সম্প্রতি কয়েকজন সংবাদকর্মীর সঙ্গে নির্বাচন কমিশনের গেটে হয়রানিমূলক আচরণ করেন কয়েকজন পুলিশ সদস্য। এরই প্রতিবাদে মানববন্ধন ও সমাবেশের আয়োজন করে ইসি বিটে কর্মরত সাংবাদিকরা। মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে সাংবাদিকরা চার দফা দাবি তুলে ধরেন।

দাবিগুলো হলো-

>> গত ২৯ আগস্ট ইসির গেটে সাংবাদিক হয়রানির ঘটনা তদন্তে নিরপেক্ষ কমিটি করতে হবে, সেখানে সাংবাদিক প্রতিনিধি রাখাতে হবে। হয়রানির ঘটনায় জড়িত ইসি কর্মকর্তা-কর্মচারী ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের প্রত্যাহার করে শাস্তির আওতায় আনতে হবে।

>> ইসি বিটে কর্মরত সব সংবাদকর্মীকে মুক্তভাবে নির্বাচন কমিশনের সংবাদ সংগ্রহের নিশ্চয়তা দিতে হবে। তাদের কোনো ধরনের হয়রানি করা যাবে না।

>> নির্বাচন ভবনের সব জায়গায় যাওয়ার অনুমতি দিতে হবে, সব ধরনের তথ্য পাওয়ার অধিকার নিশ্চিত করতে হবে।

>> শুধু ঢাকার নির্বাচন ভবন নয়, ইসির জেলা-উপজেলা পর্যায়ের কর্মকর্তারাও সাংবাদিকদের হয়রানি করেন, নির্বাচনবিষয়ক খবর সংগ্রহে সারাদেশে সাংবাদিক হয়রানি বন্ধ করতে হবে ও সংবাদকর্মীদের জন্য ইসি ভবনে অবাধ প্রবেশের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে।

প্রতিদিনের সংবাদের সম্পাদক শেখ নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সিনিয়র রিপোর্টার গাজী শাহনেওয়াজের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য দেন বিএফইউজে কোষাধ্যক্ষ দীপ আজাদ, সিনিয়র সাংবাদিক লায়েকুজ্জামান, ডিইউজে প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মো. আছাদুজ্জামান, নির্বাহী পরিষদ সদস্য রাজু হামিদ, সাবেক নির্বাহী পরিষদ সদস্য গোলাম মুজতবা ধ্রুব।

এছাড়া উপস্থিত ছিলেন ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (একাংশের) সহ-সভাপতি রাশেদুল হক, ডিআরইউয়ের সাধারণ সম্পাদক মশিউর রহমান খান, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ শুক্কর আলী শুভ, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক নূরুল ইসলাম হাসিব, সাবেক ডিআরইউ নেতা শাহনাজ শারমিন। সচিবালয় বিটের সংগঠন বিএসআরএফের কার্যনির্বাহী সদস্য শাহজাহান মোল্লা ও ইসমাইল হোসেন রাসেল।

মানববন্ধনে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে), ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে) ও ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাবেক এবং বর্তমান নেতারা অংশ নেন।

এসএম/এআরএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]