অনুসন্ধানী প্রতিবেদন রাষ্ট্রের তৃতীয় চোখ খুলে দেয়: তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:২২ পিএম, ০২ নভেম্বর ২০২১

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘অনেক পরিশ্রমে বছরজুড়ে তৈরি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন সমাজ ও রাষ্ট্রের তৃতীয় চোখ খুলে দেয়। বাস্তবতার নিরিখে সাংবাদিকদের অনেক প্রতিবন্ধকতা অতিক্রম করতে হয়। ফলে সেই বিষয়টি প্রশিক্ষণে থাকা উচিত।’

মঙ্গলবার (২ নভেম্বর) বিকেলে বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটে (পিআইবি) আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে ই-লার্নিং প্ল্যাটফর্ম pibelearning.gov.bd উদ্বোধন ও বিগত কোর্সের সনদ প্রদান করেন তথ্যমন্ত্রী।

ই-লার্নিং প্ল্যাটফর্ম দেশে সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণে নতুন মাত্রা যোগ করেছে উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘দেশে এক দশকে গণমাধ্যমের ব্যাপক বিকাশ ঘটেছে। সেই অনুযায়ী প্রশিক্ষণের প্রসার ঘটেনি। পেশাগত কাজে ব্যস্ততা কাটিয়ে সিনিয়র সাংবাদিকদের জন্য অনলাইনে প্রশিক্ষণ অত্যন্ত সুবিধাজনক ও গুরুত্বপূর্ণ। ই-লার্নিং কোর্সের জন্য ইতোমধ্যে পাঁচ হাজার আবেদনে এর গুরুত্ব সুস্পষ্ট হয়ে উঠেছে।’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিবিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের চিন্তাপ্রসূত ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের সুফল হিসেবে করোনা মহামারির মধ্যেও দেশে অনলাইনে শিক্ষাদান চালু রাখা সম্ভব হয়েছে। আমি নিজেও এসময় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের খণ্ডকালীন শিক্ষক হিসেবে ক্লাস ও পরীক্ষা নিয়েছি। বিদেশ থেকেও ক্লাস নিয়েছি আমি।’

সমাজ ও দেশ গঠনে ভূমিকা রাখার আহ্বান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘চ্যানেল আইয়ের শাইখ সিরাজ উন্নয়ন সাংবাদিকতার মাধ্যমে সমাজ ও দেশ গঠনে যে ভূমিকা রেখেছেন, তা প্রশংসার দাবিদার।’

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন পিআইবির মহাপরিচালক জাফর ওয়াজেদ। এতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সুভাষ চন্দ বাদল, পিআইবির পরিচালক মো. আফরাজুর রহমান।

এসময় ই-লার্নিং সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণে অংশ নেওয়া ১০০ জনের হাতে সনদপত্র তুলে দেওয়া হয়।

আইএইচআর/এএএইচ/জিকেএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]