মুক্তার অপারেশন আপাতত সম্ভব নয়

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৭:৪৩ এএম, ২০ জুলাই ২০১৭

 

বিরল চর্মরোগে আক্রান্ত সাতক্ষীরার স্কুলছাত্রী মুক্তার আপাতত অপারেশন সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

বৃহস্পতিবার দুপুরে মুক্তার ‘ট্রিটমেন্ট প্ল্যান’ বা পরবর্তী চিকিৎসা পরিকল্পনা নিয়ে মেডিকেল বোর্ডের বৈঠক শেষে এ তথ্য জানান জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারির প্রধান সমন্বয়কারী ডা. সামন্ত লাল সেন।

বৈঠকে মুক্তার বায়োপসি করার ও আপাতত অপারেশন না করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয় জানিয়ে তিনি বলেন, আগামী ৪/৫ দিনের মধ্যে বায়োপসির মাধ্যমে মুক্তার রোগটি নিশ্চিতভাবে শনাক্ত করা হবে। 

সামন্ত লাল সেন আরও জানান, মুক্তা শারীরিকভাবে খুবই দুর্বল। বুধবার তার শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটে। রক্তে প্লাটিলেট কমে গেছে। তাকে রক্ত দেয়ার পর এখন শারীরিক অবস্থা আগের তুলনায় ভাল।

এরআগে গত ১১ জুলাই ঢামেকের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয় মুক্তাকে। এ পর্যন্ত তাকে ৩ ব্যাগ রক্ত ৩ ব্যাগ প্লাজমা ও ১ ব্যাগ প্লাটিলেট দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার তার জ্বর ছিল। হালকা রক্তক্ষরণও হয়েছে। এর পরপরই তাকে রক্ত ও এবং প্লাজমা (সাদা রক্ত) দেয়া হয়। 

মুক্তার জন্য গঠিত বোর্ডের সদস্যরা হচ্ছেন- ডা. সামন্ত লাল সেন, ইউনিটের বর্তমান পরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ, একই ইউনিটের চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. সাজ্জাদ খন্দকার, ঢামেক হাসপাতালের সার্জারি বিভাগের অধ্যাপক ডা. এবিএম খুরশিদ আলাম, মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ডা. টিটু মিয়া, বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক বিভাগের চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. রায়হানা আউয়াল এবং ঢামেকের চর্মরোগ বিভাগের চিকিৎসক অধ্যাপক ডা. রাশেদ মোহাম্মদ খান।

এমইউ/এসআর/এনএফ/পিআর