মুক্তার জীবন রক্ষায় যা যা প্রয়োজন করেন : বাবা-মা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:৫৯ পিএম, ০৮ আগস্ট ২০১৭

বিরল চর্মরোগে আক্রান্ত শিশু মুক্তামণি ‘হেমানজিওমা’রোগে আক্রান্ত। সহজ বাংলায় একে ‘রক্তনালীর টিউমার’বলা হয়। গত শনিবার মুক্তার বায়োপসি করার পর রিপোর্টে এই রোগ ধরা পড়ে। আগামী শনিবার (১২ জুলাই) মুক্তার হাতের অপারেশন করার কথা রয়েছে।

মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে মুক্তার চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, মুক্তার হাতের একাধিক অপারেশনের প্রয়োজন রয়েছে। তার দীর্ঘমেয়াদী চিকিৎসা দরকার। একপর্যায়ে তার বাম হাত কেটে ফেলতে হতে পারে। সংবাদ সম্মেলনের আগে অবশ্য তার চিকিৎসা নিয়ে বাবা-মার সঙ্গে কথা বলেন চিকিৎসকরা। হাত কাটার আশঙ্কার কথা জানান। উত্তরে মুক্তার বাবা ইব্রাহীম হোসেন ও মা আসমা খাতুন বলেন, আপনারা মুক্তার জীবন রক্ষায় যা যা প্রয়োজন করুন।

সংবাদ সম্মেলনের পর ইব্রাহীম হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, মুক্তার চিকিৎসা নিয়ে আমরা খুব সন্তুষ্ট। এখানে অনেক বেশি যত্ন নেয়া হচ্ছে যা আগে কোথাও নেয়া হয়নি। ডাক্তারদের উপর আমার ভরসা আছে। জীবন রক্ষার জন্য তারা যা করতে চান এতে আমার কোন আপত্তি নাই। আমরা শুধু আমাদের মেয়েকে চাই।

চিকিৎসকদের বারবার হাত কাটার আশঙ্কায় একই উত্তর দিয়েছেন মুক্তার মা। তিনি চিকিৎসকদের উদ্দেশে বলেন, মুক্তার জন্য তারা যা ভালো মনে করেন তাই করবেন। মুক্তার শারীরিক অবস্থা জানতে চাইলে তার বাবা জানান, মুক্তা আজ স্বাভাবিকই আছে। বায়োপসির দিন রক্তক্ষরণ হলেও এখন নাই। আপনারা তার জন্য দোয়া করবেন। এদিকে মঙ্গলবার মুক্তার শারীরিক অবস্থা নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটের প্রধান সমন্বয়ক ডা. সামন্ত লাল সেনসহ বোর্ডের অন্যান্য চিকিৎসকরা।

এ সময় চিকিৎসকরা বলেন, সোমবার রাতে আমরা মুক্তার বায়োপসি রিপোর্ট হাতে পাই। এরপর ১৩ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড আজ (মঙ্গলবার) সকালে বৈঠকে বসে।সেখান থেকেই শনিবারের অপারেশনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এখন পর্যন্ত ভালো লক্ষণ যে মুক্তামনির শরীরে ক্যানসার ছড়ায়নি। তবে অস্ত্রোপচারে রক্তপাতের আশঙ্কা রয়েছে। ১০ ব্যাগ রক্ত প্রস্তুত রাখা হবে।

এআর/ওআর/আরআইপি

টাইমলাইন  

আপনার মতামত লিখুন :