মানবপাচার রোধে কর্মপরিকল্পনা তৈরি করা হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:০৮ এএম, ২৮ নভেম্বর ২০১৭ | আপডেট: ০৬:২০ এএম, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৭
ছবি-ফাইল

মানবপাচার রোধে সরকার দৃঢ় প্রতিজ্ঞ উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, সরকারের একার পক্ষে মানবপাচার রোধ করা সম্ভব নয়। এজন্য দরকার ঐক্যবদ্ধ পদক্ষেপ। মানবপাচার রোধে সরকার, সিভিল সোসাইটি এবং অন্যান্য প্রতিষ্ঠানকে এক সঙ্গে কাজ করতে হবে।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৯টায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে শুরু হওয়া দুইদিন ব্যাপী ‘মানব পাচার প্রতিরোধ ও দমনে জাতীয় কর্মপরিকল্পনা ২০১৫-২০১৭’শীর্ষক জাতীয় সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ১০ লাখের বেশি রোহিঙ্গা বর্তমানে বাংলাদেশে অবস্থান করছে। তাদের মিয়ানমারে ফিরিয়ে দেয়াই এখন প্রধান চ্যালেঞ্জ। এ বিষয়ে সকলের সহযোগিতা দরকার। মানবপাচার রোধে কর্মপরিকল্পনা তৈরি ও কী কী চ্যালেঞ্জ রয়েছে তা শনাক্ত করা হবে। সরকার সেগুলো নিয়ে আন্তরিকভাবে কাজ করবে। মানবপাচার প্রতিরোধে সরকার সরব ভূমিকা পালন করছে। সে লক্ষ্যেই এন্টি ট্রাফিকিং অ্যাক্ট ২০১২ প্রণয়ন করা হয়েছে। মানবপাচার প্রতিরোধে আমরা প্রতিবেশী দেশ ভারতের সঙ্গেও কাজ করছি।

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. জিল্লুর রহমান বলেন, মানবপাচার প্রতিরোধে জনগণকে সচেতন ও সজাগ থাকতে হবে। বিদেশে যাবার আগে ভালো করে যাচাই করে নিতে হবে, তিনি যেভাবে যাচ্ছেন তা বৈধ কিনা? বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব নমিতা হালদার বলেন, ‘বেশিরভাগ কর্মী বিদেশে গিয়ে প্রতারণার শিকার হন। কেউ কেউ পাচারেরও শিকার হন। ১ লাখেরও বেশি গৃহকর্মীকে বৈধ পথে মধ্যপ্রাচ্যসহ বিভিন্ন দেশে পাঠানো হয়েছে। এরপরও তাদের মধ্যে কিছু সংখ্যক গৃহকর্মী পাচারের শিকার হন।’তিনি আরও বলেন, কিছু এনজিও আছে তারা মিথ্যা প্রচারণা চালাচ্ছে।

সরকার ভালো কাজ করা সত্ত্বেও তারা নেতিবাচক প্রচারণা চালিয়ে আসছে। এটা দুর্ভাগ্যজনক। তিনি জনগণকে পাচারকারীদের সম্পর্কে তথ্য দেয়ার আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সচিব মো. মোস্তফা কামাল উদ্দিন, আইন মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিচার বিভাগের সচিব আবু সালেহ শেখ মো. জহিরুল হক ও আমেরিকান এনজিও ইউএসএইড এর মিশন ডিরেক্টর জেনিনা জেরুজেলেস্কি। অনুষ্ঠানে মানবপাচার রোধে ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনার বিষয়ে বিশদ আলোচনা গুরুত্ব পায়।

জেইউ/ওআর/আরআইপি

আপনার মতামত লিখুন :