নৌপথ খননের মহাপরিকল্পনা

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:৫৩ পিএম, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৭

দেশে ক্যাপিটাল ড্রেজিংয়ের আওতায় প্রাথমিকভাবে ৫৩টি নদী খনন কাজে প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। প্রথম পর্যায়ে ২৪টি নদী খনন কাজের মধ্যে চারটির কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে। বাকি ২০টি প্রকল্পের কাজ চলমান। এ প্রকল্পের আওতায় বিভিন্ন পর্যায়ে সারাদেশের ২৪ হাজার কিলোমিটার নৌপথ খননের মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে।

বুধবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সরকারি প্রতিশ্রুতি সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির ৩৬তম বৈঠকে এ তথ্য জানায় মন্ত্রণালয়। কমিটির সভাপতি কাজি কেরামত আলীর সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট মো. রহমত আলী, মো. শহীদুজ্জামান সরকার, মো. আব্দুল মজিদ খান এবং মীর মোস্তাক আহমেদ রবি বৈঠকে অংশ নেন।

বৈঠকে ৯ম জাতীয় সংসদের প্রথম থেকে শেষ অধিবেশন পর্যন্ত এবং ১০ম জাতীয় সংসদে সম্প্রতি সমাপ্ত অধিবেশন পর্যন্ত সময়ে সংসদের ফ্লোরে প্রধানমন্ত্রী এবং নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী কর্তৃক প্রদত্ত প্রতিশ্রুতির বিবরণের ওপর আলোচনা ও নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রকল্পগুলো বিবরণ উপস্থাপন করা হয়। বাস্তবায়ন, পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগ (আইএমইডি) কর্তৃক নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের উপস্থাপিত বিভিন্ন প্রকল্পের বাস্তবায়ন অগ্রগতির বিষয়ে মতামত প্রদান করা হয়।

নৌপথ ড্রেজিংয়ের আগে অবশ্যই ফিজিবিলিটি স্টাডি করে খনন কাজে হাত দেয়ার সুপারিশ করা হয়েছে। দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া ফেরিঘাটে ঘন কুয়াশার কারণে ফেরি সার্ভিস বন্ধ থাকায় শতশত যানবাহন ঘণ্টার পর ঘণ্টা পারাপারের অপেক্ষায় থাকতে হয়। তাই এ নৌপথে সোলার প্যানেলের মাধ্যমে লাইটিং ব্যবস্থা চালু করা এবং প্রত্যেকটি ফেরিতে রাডার স্থাপন করে পারাপার সচল রাখার সুপারিশ করা হয় বৈঠকে।

এইচএস/জেডএ/এমএস

সারাদেশে খনন করা হবে ২৪ হাজার কিলোমিটার নৌপথ।