দুদকের পতাকার সম্মান রক্ষায় নীতিমালা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:০৯ এএম, ২০ ডিসেম্বর ২০১৭
দুদকের পতাকার সম্মান রক্ষায় নীতিমালা

দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) পতাকার সম্মান রক্ষায় একটি নীতিমালা করেছে সংস্থাটি। গত ১৭ ডিসেম্বর ‘দুর্নীতি দমন কমিশনের পতাকা ব্যবহার নীতিমালা-২০১৭’ জারি করা হয়েছে।

নীতিমালায় বলা হয়েছে, ‘দুদক পতাকা’র প্রতি সব সময় যথাযথ সম্মান ও মর্যাদা দেখাতে হবে। ‘দুদক পতাকা’ জাতীয় পতাকার বাম পাশে একটু নিচে উড়াতে হবে।

‘দুদক পতাকা’ দিয়ে মোটরযান, রেলগাড়ি বা নৌযানের খোল, সম্মুখভাগ বা পেছনের অংশ কোনো অবস্থাতেই ঢেকে দেয়া যাবে না। ‘দুদক পতাকা’ কোনো ব্যক্তি বা জড়বস্তুর দিকে নিম্নমুখী করা যাবে না। পতাকা কখনই এর ক্ষেত্রে নিচের কোনো বস্তু যেমন- মেঝে, পানি বা পণ্যদ্রব্য স্পর্শ করবে না উল্লেখ করা হয়েছে নীতিমালায়।

‘দুদক পতাকা’ এমনভাবে উত্তোলন, প্রদর্শন, ব্যবহার বা সংরক্ষণ করা যাবে না, যাতে এটি সহজেই ছিঁড়ে যেতে পারে বা যেকোনোভাবে ময়লা বা নষ্ট হতে পারে। কোন কিছু গ্রহণ, ধারণ, বহন বা বিলি করার জন্য ‘দুদক পতাকা’ ব্যবহার করা যাবে না।

নীতিমালায় বলা হয়েছে, ‘দুদক পতাকা’ সম্মানের সঙ্গে উত্তোলন করতে হবে এবং সসম্মানে নামাতে হবে। পতাকা উত্তোলন করার সময় জাতীয় পতাকা সবার আগে এবং ‘দুদক পতাকা’ এরপর উঠাতে হবে। পতাকা নামানোর সময় ‘দুদক পতাকা’ আগে এবং জাতীয় পতাকা শেষে নামাতে হবে।

মোটরগাড়ি এবং নৌযান ছাড়া অন্যান্য ক্ষেত্রে শুধুমাত্র সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত পতাকা উত্তোলন করা যাবে।

সরকারের পতাকা বিধিতে উল্লেখিত নির্ধারিত দিবসগুলোতে জাতীয় পতাকার বাম পাশে একটু নিচুতে ‘দুদক পতাকা’ উত্তোলিত হবে।

দুর্নীতি দমন কমিশনের প্রধান কার্যালয়, বিভাগীয় কার্যালয়, সমন্বিত জেলা কার্যালয় এবং কমিশনের নির্ধারিত ভবনে সব কর্মদিবসে বাংলাদেশের পতাকার বাম পাশে একটু নিচে ‘দুদক পতাকা’ উত্তোলন করা হবে।

দুর্নীতি দমন কমিশনের চেয়ারম্যান ও কমিশনার তাদের মোটরগাড়ি ও জলযানে ‘দুদক পতাকা’ উত্তোলন করতে পারবেন।

নীতিমালায় পতাকার আয়তন ও বর্ণনায় বলা হয়েছে, ‘দুদক পতাকা’ আকাশী নীল রং-এর হবে এবং ১০:৬ দৈর্ঘ্য ও প্রস্থের আয়তক্ষেত্রের মাঝখানে দুদক মনোগ্রামযুক্ত থাকবে।

আরএমএম/এআরএস/পিআর