সঙ্কট এড়াতে নতুন উড়োজাহাজ কেনার সিদ্ধান্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:৪৮ পিএম, ২০ ডিসেম্বর ২০১৭
সঙ্কট এড়াতে নতুন উড়োজাহাজ কেনার সিদ্ধান্ত

সঙ্কট এড়াতে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের জন্য তিনটি নতুন উড়োজাহাজ কেনা হচ্ছে। এগুলো কেনা হবে কানাডা থেকে। উড়োজাহাজগুলো কেনার জন্য কানাডা সরকার ঋণও দেবে। ৭০-৮০ আসনবিশিষ্ট টার্বোপ্রপ (ড্যাশ ৮-কিউ৪০০ এনজি) উড়োজাহাজগুলো সরাসরি ক্রয় চুক্তির মাধ্যমে রাষ্ট্রীয়পর্যায়ে কেনা হবে। এ জন্য কোনো টেন্ডারের প্রয়োজন পড়বে না।

বুধবার সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সভাপতিত্বে অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে এ সংক্রান্ত একটি প্রস্তাবের নীতিগত নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়েছে। বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোস্তাফিজুর রহমান এ তথ্য জানান।

বেসরকারি বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, এ ধরনের উড়োজাহাজের একমাত্র নির্মাতা প্রতিষ্ঠান কানাডার বম্বারডিয়ের ইঙ্ক। রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে (জিটুজি) সরাসরি ক্রয় চুক্তির মাধ্যমে উড়োজাহাজ তিনটি ক্রয় করা হবে। এ লক্ষ্যে বাংলাদেশ বিমান ‘কানাডিয়ান কমার্শিয়াল কো-অপারেশনের’(সিসিসি) সঙ্গে চুক্তি করবে। পাশাপাশি উড়োজাহাজ ক্রয়ে কানাডা সরকারের প্রতিষ্ঠান ‘এক্সপোর্ট ডেভেলপমেন্ট কানাডা’(ইডিসি) থেকে বাংলাদেশ বিমানের জন্য প্রয়োজনীয় অর্থায়নের প্রস্তাব করা হয়েছে।

জানা যায়, বর্তমানে বাংলাদেশ বিমানের বহরে মোট ১৩ উড়োজাহাজ রয়েছে। এর মধ্যে ছয়টি নিজস্ব, অপর সাতটি ভাড়ায় সংগৃহীত। বিমানের নিজস্ব উড়োজাহাজের মধ্যে চারটি বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর ও দুটি বোয়িং ৭৩৭-৮০০। ভাড়ায় সংগৃহীত উড়োজাহাজগুলোর মধ্যে একটি অভ্যন্তরীণ রুটে (ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট, রাজশাহী, সৈয়দপুর, যশোর, বরিশাল ও কক্সবাজার) এবং একটি আন্তর্জাতিক রুটে (ঢাকা, কলকাতা, কাঠমান্ডু, ইয়াংগুন) ব্যবহার করা হচ্ছে। এসব রুটে বেশি যাত্রী সেবার সুযোগ থাকায় বাংলাদেশ বিমানের বহরে দীর্ঘ মেয়াদে নিজস্ব উড়োজাহাজ বাড়ানো প্রয়োজন বলে মনে করছে সংস্থাটি।

এমইউএইচ/এএইচ/এমএস