ঘন কুয়াশার চাদরে রাজধানী

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ১০:৩৩ এএম, ১১ জানুয়ারি ২০১৮

 

‘বন্ধু তোমার পিরিতে, মন ভাসাইয়া দিলাম গাঙ্গের জলে।’ বৃহস্পতিবার সকাল ৮টার দিকে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের শিখা চিরন্তনের সামনের রাস্তা থেকে এক যুবকের কণ্ঠ থেকে ভেসে আসে এমন গানের কলি। উদ্যানে প্রাতঃভ্রমনে আসা মানুষরা গানটি কোথা থেকে ভেসে আসছে তা দেখার চেষ্টা করছিলেন। কিন্তু ঘন কুয়াশার কারণে কয়েক হাত দূরের মানুষও দেখা না যাওয়ায় তারা ওই যুবককে দেখতে পাচ্ছিলেন না। আজ শুধু সোহরাওয়ার্দী উদ্যান নয় গোটা রাজধানী ঢাকা পড়েছে ঘন কুয়াশার চাদরে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকা, রমনা পার্ক, ধানমন্ডি, মহাখালী, খামারবাড়ি, বাড্ডা ও হাতিরঝিল এলাকাসহ অনেক স্থানে শীতে জবুথবু সাধারণ মানুষ। এসময় অনেককেই শীতের ভারী পোশাক পড়ে বাইরে বের হতে দেখা যায়। অনেক গাড়ি চলছে হেডলাইট জ্বালিয়ে।

jagonews24

এমন কুয়াশামাখা সকাল অনেকের কাছে উপভোগ্য হলেও ফুটপাতের মানুষদের কষ্টের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ঘন কুয়াশার সঙ্গে বাতাস থাকার কারণে অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে তাদের। শীতবস্ত্রের অভাবে ঠান্ডায় কাঁপতে হচ্ছে তাদের।

সকালে ঘন কুয়াশা আর মেঘের আড়ালে ঢাকা পড়েছিল সূর্য। তবে থেমে থাকেনি কর্মজীবী মানুষের চলাচল। চাকরিজীবীরা নির্ধারিত সময়েই বেরিয়ে পড়েছেন রাস্তায়। রাজধানীর খামারবাড়ি মোড়ে শার্ট কোর্ট পরহিতি অনেককে বাসের জন্য দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। তাদের একজন বেসরকারি চাকরিজীবী আহসান কবির বলেন, ঘুম থেকে উঠে জানালা দিয়ে বাইরে তাকিয়ে ঘনকুয়াশা দেখে অফিস যেতে মন চাইছিলো না। কিন্তু অফিস না গিয়ে উপায় নেই। এমন কুয়াশায় একটু দূরের জিনিসও দেখা যাচ্ছে না। সব কিছু আবছা মনে হচ্ছে। আজ মনে হচ্ছে অনেক বেশিই কুয়াশা পড়েছে।

jagonews24

তবে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে আকাশ পরিষ্কার হতে থাকে। সকাল ৯টার পর দেখা মেলে রৌদ্র্যজ্বল সূর্যের। কুয়াশা কমার সাথে সাথে কমতে থাকে হিমেল বাতাস। স্বাভাবিক হতে থাকে রাজধানীর মানুষের নিত্যদিনের জীবন।

এদিকে আজ দেশের আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, সারা দেশে অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। এছাড়া বিদ্যমান শৈত্যপ্রবাহ পরিস্থিতি মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের শৈত্যপ্রবাহ হিসেবে সারা দেশে অব্যাহত থাকবে।

এমইউ/এআরএস/আরআইপি

আপনার মতামত লিখুন :