ইজতেমা ঘিরে ছিল জমজমটা মৌসুমি ব্যবসা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১২:৫২ পিএম, ২১ জানুয়ারি ২০১৮
ইজতেমা ঘিরে ছিল জমজমটা মৌসুমি ব্যবসা

টঙ্গীর তুরাগ তীরে বিশ্ব ইজতেমাকে কেন্দ্র করে বাহারি সব ব্যবসা খুলে বসেছিলেন স্থানীয়রা। পাশাপাশি হকার ও মৌসুমি ব্যবসায়ীদের ছিল জমজমাট ব্যবসা। টঙ্গীর তুরাগ পাড় ছাড়াও মৌসুমি ব্যবসায়ীরা রাস্তার দুই পাশে তাদের পসরা সাজিয়ে বসেছিলেন। ইজতেমার আখেরি মোনাজাত শেষে মুসল্লিরা পায়ে হেঁটেই ফিরছেন অনেকেই। এসব মুসল্লিদের জন্য রাস্তার দু’পাশে বিভিন্ন পসরা সাজিয়ে বসেছিলেন মৌসুমি ব্যবসায়ীরা।

রাজধানীর কুড়িল বিশ্বরোড থেকে শুরু হয়ে খিলক্ষেত, এয়ারপোর্টে, উত্তরা ও আব্দুল্লাহপুরের রাস্তার দুপাশে বসে এমন অসংখ্য অস্থায়ী দোকান। সেখানে বিক্রি হয় আতর, টুপি-জায়নামাজ, তসবিহ, চাদর, কম্বল ও জ্যাকেট। এছাড়া ছিল খাবারের দোকান ও প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের অসংখ্য অস্থায়ী দোকান।

খিলক্ষেত পার হয়ে এয়ারপোর্টে রাস্তায় অস্থায়ী দোকান দিয়েছেন আব্দুল আলিম। তিনি বলেন, নিকুঞ্জে স্টেশনারির একটি দোকানে চাকরি করি। ইজতেমায় অনেক মুসল্লি অংশ নেন। আর যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা থাকায় বেশিরভাগ মুসল্লিরা হেঁটে যাওয়া আসা করেন। তাই প্রতিবারই এই মৌসুমি ব্যবসা ব্যাপকভাবে জমে উঠে।

tupi

তিনি বলেন, অল্প পুঁজিতে লাভজনক ব্যবসা হয় এই সময়। তাই ছুটি নিয়ে এই একদিনের জন্য এখানে অস্থায়ী দোকান দিয়েছি। পাইকারি দরে এসব জায়নামাজ টুপি, তসবিহ, আতর কিনে এনেছি প্রথম পর্বের ইজতেমার আগে। ওইদিন ২৫শ টাকা লাভ হয়েছিল। আজও বিক্রি ভালো।

শুধু আব্দুল আলিম নয় এরকম অনেকেই ইজতেমা উপলক্ষে রাস্তার দুপাশে এমন অস্থায়ী দোকান দিয়েছিলেন। আখেরি মোনাজাত শেষে পায়ে হেঁটে ফেরা মুসল্লিরা এসব অস্থায়ী দোকান থেকে কিনে নিচ্ছেন নানা পণ্য। ফলে জমে উঠেছে অস্থায়ী এসব দোকানিদের মৌসুমি ব্যবসা।

গাজীপুরের টঙ্গীর তুরাগ তীরে শুরু হওয়া মুসলমানদের দ্বিতীয় বৃহত্তম জমায়েত বিশ্ব ইজতেমা শেষ পর্বের আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে। দ্বিতীয় পর্বের এই মোনাজাত আজ বেলা সকাল সাড়ে ১০টা ১৯ মিনিটে শুরু হয়ে চলে ১০টা ৪৫ মিনিট পর্যন্ত। এর মধ্যে ১১ মিনিট আরবিতে এবং ১৫ মিনিট বাংলায় মোনাজাত করা হয়।

tupi

মোনাজাতে অংশ নিতে ইজতেমা প্রাঙ্গণে ঢল নামে লাখো মানুষের। ময়দানের আশপাশের রাস্তায়ও অবস্থান নেন বিপুলসংখ্যক মানুষ।

উল্লেখ্য, টঙ্গীর তুরাগ তীরে দেশি-বিদেশি লাখ লাখ মুসল্লির জমায়েতের মধ্যদিয়ে গত ১২ জানুয়ারি শুরু হয় ইজতেমার প্রথম পর্ব। এতে ঢাকার একাংশসহ ১৪ জেলার মুসল্লিরা অংশ নেন। গত ১৪ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছিল ওই পর্ব। এর গত ১৯ জানুয়ারি শুরু হওয়া ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বে অন্য ১৪ জেলার মুসল্লিরা অংশ নিয়েছেন।

এএস/এআরএস/আইআই