পার্ক-মাঠে কমিউনিটি সেন্টার-স্থাপনা না করার দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:২০ পিএম, ০৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

পার্ক বা মাঠে কমিউনিটি সেন্টার অথবা অন্য কোনো স্থাপনা না করার দাবি জানিয়ে নবাবগঞ্জ শিশুপার্কে বহুতল ভবনের নামে কমিউনিটি সেন্টার বাণিজ্য বন্ধ করার আহ্বান জানিয়েছে বিভিন্ন পরিবেশবাদী সংগঠন।

শনিবার নবাবগঞ্জ শিশু পার্ক (নবাবগঞ্জ পার্ক) সংলগ্ন বেড়িবাঁধে পরিবেশ বাঁচাও আন্দোলনসহ (পবা) মোট ২০টি পরিবেশবাদী ও সামাজিক সংগঠনের উদ্যোগে আয়োজিত এক মানববন্ধনে এ দাবি জানানো হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ২৩ নং ওয়ার্ডস্থ পাঁচ লক্ষাধিক নাগরিকের বসবাস। এই ওয়ার্ডের স্বল্প পরিসরে বিভিন্ন অবকাঠামো থাকলেও একটি মাত্র পার্ক ছাড়া নেই বিনোদনের জন্য খোলা মাঠ ও পাক। কিন্তু দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন এরই মধ্যে পার্কটির জায়গায় কমিউনিটি সেন্টার নির্মাণ প্রকল্প গ্রহণ করে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করতে যাচ্ছে। এই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে শিশুদের জন্য থাকবে না কোনো মাঠ, মানসিক বিকাশ হবে বাধাগ্রস্ত সর্বপরি সর্বসাধারণের স্বাসপ্রশ্বাসের জন্য থাকবে না কোনো উন্মুক্ত প্রান্তর।

তারা বলেন, কমিউনিটি সেন্টার যদি করতেই হয় তবে পার্ক, মাঠ ও জলাধার সংরক্ষণ আইন-২০০০, বাংলাদেশ পরিবেশ সংরক্ষণ আইন-১৯৯৫ ও রাজউকের মাস্টারপ্ল্যান ও ইমারাত নির্মাণ বিধিমালা অনুসরণ করে করতে হবে। প্রকল্পটি জনসম্মুখে প্রকাশ ও যথাযথভাবে গণশুনানির। এছাড়াও পার্কটিকে সংরক্ষণ করে পরিবেশ অধিদফতর ও রাজউকের অনুমোদন নিয়ে প্রকল্পটিকে বাস্তবায়ন করতে হবে। এ দাবি পূরণ না হলে আমরা নিয়মতান্ত্রিকভাবে আন্দোলন চালিয়ে যাব।

বক্তারা আরও বলেন, সরকারি ও বেসরকারি সংস্থা ঢাকার অনেকগুলো পার্ক ও উম্মুক্ত স্থান ইতোমধ্যে গ্রাস করেছে, যেমন- টিকাটুলি পার্ক, উত্তরা ১নং সেক্টর পার্ক, মোহাম্মদপুর শহীদ পার্ক, আজিমপুর পার্ক ইত্যাদি। এছাড়াও অনেকগুলো পার্ক ও উম্মুক্ত স্থানের অংশবিশেষ ওয়াসার পাম্প স্টেশন, সিটি কর্পোরেশনের কমিউনিটি সেন্টার, কমিশনারের অফিস, ক্লিনিক ইত্যাদির জন্য দখল করা হয়েছে, যেমন-নবাবগঞ্জ পার্ক, যাত্রাবাড়ী ক্রসিং পার্ক, নয়াটোলা শিশু পার্ক, লালমাটিয়া নিউ কলোনী পার্ক, পান্থকুঞ্জ, সলিমুল্লাহ রোড মাঠ ইত্যাদি। এটা খুবই দুঃখজনক যে নিয়ন্ত্রণকারী কর্তৃপক্ষ নিজেই ঢাকার মূল্যবান পার্ক ও উম্মুক্ত স্থানের বিষয়ে সচেতন নয়। সিটি কর্পোরেশনের পার্ক ও উম্মুক্ত স্থানে আরও কমিউনিটি সেন্টার নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে। এভাবেই ছোট ও মাঝারি আকারের পার্ক, খেলার মাঠ ও উম্মুক্ত স্থান বলপূর্বক দখলের ঝুঁকিতে রয়েছে।

পবা’র চেয়ারম্যান আবু নাসের খানের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন পবা’র সাধারণ সম্পাদক এবং পরিবেশ অধিদফতরের সাবেক অতিরিক্ত মহাপরিচালক প্রকৌশলী মো. আবদুস সোবহান, নাসফ-এর সাধারণ সম্পাদক তৈয়ব আলী, পবা’র সহ-সম্পাদক এম এ ওয়াহেদ, সুবন্ধন সমাজ কল্যাণ সংগঠনের সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিব প্রমুখ।

এএস/জেএইচ/আরআইপি