৫০ হাজার পোশাক শ্রমিককে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দেবে ব্র্যাক

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:৩৪ এএম, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

সাভার, টঙ্গী ও গাজীপুর এলাকার পোশাক কারখানার ৫০ হাজার কর্মীকে বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা দেবে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাক। পাশাপাশি তাদেরকে ডিপোজিট প্রিমিয়াম স্কিমের (ডিপিএস) মাধ্যমে আর্থিক সেবা, পারিবারিক সহিংসতা রোধে আইনি সহায়তা, সুইং মেশিন অপারেশন প্রশিক্ষণ ও চাকুরির ব্যবস্থা, মায়া আপা অ্যাপ -এর মাধ্যমে স্বাস্থ্য ও মনোসামাজিক সেবা প্রদান করা হবে।

এছাড়া তিনটি সার্ভিস সেন্টারের মাধ্যমে ২০২০ সাল পর্যন্ত এসব এলাকার ২৫টি পোশাক কারখানার কর্মীদের মধ্যে ‘এমপাওয়ারিং দি রেডিমেড গার্মেন্টস ওয়ার্কার্স লিভিং ইন আরবান স্লামস অব ঢাকা’ প্রকল্পের আওতায় এসব সুবিধা দেয়া হবে।

সোমবার সকালে গাজীপুরের কড্ডার বাইপাস মোড়ের ১৩ নম্বর ওয়ার্ডে প্রকল্প অবহিতকরণ ও ব্র্যাক সেবাকেন্দ্র উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে এ তথ্য তুলে ধরা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ুন কবীর। ব্র্যাকের আরবান ডেভেলপমেন্ট কর্মসূচি আয়োজিত অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ব্র্যাক আরবান ডেভেলপমেন্ট কর্মসূচির প্রোগ্রাম ম্যানেজার শেখ মজিবুল হক, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর খোরশেদ আলম সরকার, ইন্টারন্যাশনাল ক্লাসিক কম্পোজিট লিমিটেডের অপারেশন্স সার্পোট সার্ভিসের জেনারেল ম্যানেজার সাব্বির আহমেদ ওসমানি, রেনেসাস গ্রুপের জেনারেল ম্যানেজার সৈয়দা শায়লা আশরাফ, গাজীপুর প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি অধ্যাপক মুকুল মল্লিক প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, দেশের রফতানি আয়ের প্রায় ৮০% ভাগই আসে পোশাক খাত থেকে। তাই টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের জন্য ব্র্যাক নগরের পোশাক কর্মী ও দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জন্য শিক্ষা, স্বাস্থ্য, সুপেয় পানি, নিরাপদ মাতৃত্ব, সুপরিকল্পিত ও টেকসই নগরায়ন, সামাজিক নিরাপত্তা ইত্যাদি নিশ্চিতকরণের লক্ষ্যে মাল্টিসেক্টরাল পার্টনারের সঙ্গে সমন্বিত কার্যক্রম বাস্তবায়ন করে আসছে। তারই অংশ হিসেবে এই প্রকল্পের আওতায় সেবাকেন্দ্রটি উদ্বোধন করা হয়েছে।

সেবাকেন্দ্র থেকে মা, নবজাতক ও শিশুস্বাস্থ্য বিষয়ক প্রাথমিক চিকিৎসা সুবিধা এবং স্বাস্থ্য সুরক্ষায় পরিচ্ছন্নতা বিষয়ে সচেতন করা হবে। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের মাধ্যমে সপ্তাহে শনিবার ব্যতীত প্রতিদিন সকাল ১০ টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চিকিৎসা সেবা ও ওষুধ দেয়া হবে।

এমবিআর/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :