জানমালের নিরাপত্তায় পুলিশের যা করার তাই করবে : তোফায়েল

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৪:৩০ পিএম, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | আপডেট: ০৪:৫০ পিএম, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, খালেদা জিয়ার রায়কে ঘিরে যে কোনো ধরনের অরাজক পরিস্থিতিতে জনগণের জানমালের নিরাপত্তায় যা যা করার পুলিশ তাই করবে।

মঙ্গলবার সচিবালয়ে বাংলাদেশ চা গবেষণা ইনস্টিটিউটের সঙ্গে টি রিসার্স ইনস্টিটিউট, চাইনিজ একাডেমি অব এগ্রিকালচারাল সাইন্স-এর মধ্যে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়কে সামনে রেখে বিএনপি রাজপথে অবস্থান নেবে। সেটি মোকাবেলায় আওয়ামী লীগ ও সরকারের পক্ষ থেকে কী পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে- জানতে চাইলে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, রায়ে কি হবে তা কেউ জানে না। খালেদা জিয়া সেই মামলায় খালাসও পেতে পারেন আবার অন্য কিছুও হতে পারে। বিচারাধীন একটা মামলা, এটা বিচার বিভাগের স্বাধীনতা। কারো কোনো হস্তক্ষেপ নেই।

তিনি বলেন, দেশের সচেতন নাগরিক হিসেবে আদালতের বিরুদ্ধে কারো পক্ষে বা বিপক্ষে দাঁড়ানো উচিত নয়। আদালত ন্যায় বিচার করবে। ন্যায় বিচারের মাধ্যমে রায় হবে, সেটা পক্ষেই হোক আর বিপক্ষেই হোক।

‘আমার মনে হয় নির্বাচনের বছর হিসেবে রায় যদি বিপক্ষেও যায় তাহলেও তারা (বিএনপি) রাজপথে কোনো বিশৃঙ্খলা করবে না। এটা আমার ধারণা। যদি করে তবে আমরা কেন রাজপথে নামব, দল (আওয়ামী লীগ) কেন রাজপথে নামবে, নামবে আইন প্রয়োগকারী সংস্থা। দেশের মানুষের জানমালের নিরাপত্তার জন্য যা যা করা দরকার তারা করবে- বলেন তিনি।

৮ ফেব্রুয়ারি নিয়ে সরকারের মধ্যে কোন টেনশন আছে কিনা- জানতে চাইলে বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, আমাকে দেখে কী মনে হয়- কোনো টেনশন আছে? কী হাসি মুখে আপনাদের সঙ্গে কথা বলছি। এমওইউ সই করেছি। সুইজারল্যান্ডের রাষ্ট্রপতি এসেছেন, তার সঙ্গে বৈঠক করেছি। সুইজারল্যান্ডের রাষ্টপতি কক্সবাজারে রোহিঙ্গাদের দেখার জন্য যাবেন। ভিয়েতনামের রাষ্ট্রপতি, ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী আসছেন- এগুলো দেখলে কি আপনাদের মনে হয়, আমরা কোনো চিন্তায় আছি। বরং আমরা অত্যন্ত ভালো অবস্থানে আছি।’

‘ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে বিএনপি ২০১৬ ও ১৭ সালে কোনো অরাজকতা করেনি আগামীতেও তারা করবে না’ বলেও মন্তব্য করে বর্ষীয়ান এ রাজনীতিবিদ।

তিনি বলেন, সাধারণত নির্বাচনের বছরে একটু গোলমাল-টোলমাল হয়। আমি তো মনে করি এবার কিছুই হবে না। অত্যন্ত সুন্দরভাবে রাষ্ট্র পরিচালিত হবে।

সারা দেশে বিএনপির কর্মীদের ধরপাকড় হচ্ছে- এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে মন্ত্রী বলেন, ধরপাকড় হয়নি। ২০০১ সালে যে ঘটনা ঘটেছে সেটা তো ঘটছে না। যারা পুলিশের গাড়ি ভেঙেছে, আক্রমণ করেছে, আসামি ছিনতাই করেছে। যাদের বিরুদ্ধে স্পেসিফিক মামলা হয়েছে, তাদের বিরুদ্ধে পুলিশ ব্যবস্থা নিচ্ছে। এটা যদি না করে তবে দেশে অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে।

খালেদা জিয়ার সিলেট সফরের সময় নেতাকর্মীদের রাস্তায় দাঁড়াতে দেয়নি পুলিশ, এটা রাজনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভূত কিনা- এ বিষয়ে তোফায়ে বলেন, আমার মনে হয় না। বিএনপি যেখানে যায়...আমরাও রাজনীতি করেছি, ছাত্র আন্দোলন করেছি, সংগ্রাম করেছি কতকিছু করেছি। সবাই বিএনপিকে নিয়ে আতঙ্কগ্রস্ত। খালেদা জিয়া যাতে নিরাপদে তার গন্তব্যে পৌঁছাতে পারেন, রাস্তায় যাতে গোলযোগ সৃষ্টি না হয় আইন প্রয়োগকারী সংস্থা সেই ব্যবস্থায় নিয়েছে।

আরএমএম/এএইচ/এমএস