নিরাপদ অভিবাসনে সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:২৫ পিএম, ১৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি বলেছেন, সরকারি ও বেসরকারি প্রচেষ্টায় নিরাপদ ও টেকসই অভিবাসন সৃষ্টির লক্ষ্যে আমাদের সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হবে। বর্তমান সময়ে তৈরি পোশাক শিল্প দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ খাত।

দেশের পাশাপাশি বিদেশেও এর চাহিদা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিশেষ করে নারীদের কর্মসংস্থান ও ক্ষমতায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। তাই অভিবাসী গার্মেন্টস কর্মীরা নিরাপদে, মর্যাদা অক্ষুণ্ন রেখে বিদেশ গমন করে এবং সম্মানের সঙ্গে দেশে ফিরে আসবে, এ প্রচেষ্টা আমাদের সবার।

বুধবার বিকেলে ঢাকার একটি হোটেলে আইএলও’র সহযোগিতায় আওয়াজ ফাউন্ডেশন কর্তৃক আয়োজিত ‘বিদেশে তৈরি পোশাক শিল্পে বাংলাদেশি অভিবাসী নারী কর্মীর নিয়োগ, কর্মী পরিবেশ ও বাসস্থান’ সম্পর্কিত দুই দিনের প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, আমাদের বিদেশগমনেচ্ছুক গার্মেন্টস নারী কর্মীদের প্রশিক্ষণকালে তাদেরকে গন্তব্য দেশের কর্মপরিবেশ, বাসস্থান ও রীতি-নীতি সম্পর্কে আরও অধিক অবহিত করার প্রয়োজন রয়েছে।

সরকারে পরিকল্পনার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, অভিবাসী কর্মী নারী কর্মীদের সুষ্ঠু, নিরাপদ ও নিয়মিত অভিবাসন, কর্মস্থলের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ, কর্মীর অধিকার সুরক্ষা এবং কর্মী ও তার পরিবারের কল্যাণ সাধনের লক্ষ্যে বর্তমান সরকার বদ্ধ পরিকর। এ লক্ষ্যে সরকার নানা ধরনের কার্যক্রম হাতে নিয়েছে।

বিশেষ করে দক্ষ ও প্রশিক্ষিত নারী কর্মী প্রেরণে নানামুখী কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। নারী কর্মীদের ভাষা শিক্ষা ও দক্ষতার প্রয়োজন রয়েছে। তাই আমরা বিদেশ গমনেচ্ছু নারী কর্মীদের জন্য ভাষা শিক্ষা ও দক্ষতার ওপরে সর্বাধিক গুরুত্ব প্রদান করছি।

দুই দিনের প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপনী অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের প্রফেসর ড. সি আর আবরার সভাপতিত্ব করেন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন আওয়াজ ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক ও নির্বাহী পরিচালক নাজমা আক্তার।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আইএলও ঢাকা বাংলাদেশের ডেপুটি কান্ট্রি ডিরেক্টর অ্যান্ড অফিসার ইনচার্জ গগন রাজ ভাণ্ডারী।

আরএম/এমআরএম/পিআর

আপনার মতামত লিখুন :