আহত বাংলাদেশি শাওন ও দুই নেপালিকে সিঙ্গাপুর নেয়া হবে

আদনান রহমান
আদনান রহমান , নিজস্ব প্রতিবেদক কাঠমান্ডু থেকে
প্রকাশিত: ০৪:৪৭ পিএম, ১৪ মার্চ ২০১৮

কাঠমান্ডুতে বিমান বিধ্বস্তে আহত বাংলাদেশি রেজওয়ানুল হক শাওন এবং দুই নেপালিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুর নেয়া হবে। এছাড়া বাংলাদেশি শাহরীন আহমেদকেও উন্নত চিকিৎসা দিতে দেশে নিয়ে আসতে চাচ্ছেন তার পরিবার। আরেক বাংলাদেশি ইমরানা কবিরেরও উন্নত চিকিৎসা প্রয়োজন। তবে তার শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে অন্য দেশে পাঠানো সম্ভব নয় বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

ইউএস-বাংলার জেনারেল ম্যানেজার (জনসংযোগ) মো. কামরুল ইসলাম জানান, বিমান দুর্ঘটনার পর ভাগ্যক্রমে বেঁচে যাওয়া রেজওয়ানুল হককে নেপালের ওম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য আজ (বুধবার) রাতেই সিঙ্গাপুর পাঠানো হবে।

এর আগে শাওনের পরিবার সূত্র জানিয়েছিল, শাওনকে বৃহস্পতিবার সিঙ্গাপুর নেয়া হতে পারে। এজন্য কাঠমান্ডুর হাসপাতালের ছাড়পত্রসহ নানা আনুষ্ঠানিকতা চলছে।

ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্স সূত্র জানিয়েছে, শাওন ও দুই নেপালি নাগরিককে সিঙ্গাপুর নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে। ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্স তাদের খরচ বহন করবে।

এদিকে আহত শাহরীন আহমেদের ভাই জানান, উন্নত চিকিৎসার জন্য শাহরীনকে আমরা বৃহস্পতিবার ঢাকায় নিতে যেতে চাই। বাংলাদেশি দূতাবাস বলেছে চিকিৎসকরা বললে তাকে পাঠানো যেতে পারে। ইতোমধ্যে দূতাবাস তার পাসপোর্ট তৈরির কাজ করছে বলে শুনেছি।

গত সোমবার (১২ মার্চ) ঢাকা থেকে ছেড়ে যাওয়া ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট বিএস ২১১ নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছানোর পর দুর্ঘটনায় পতিত হয়। বিমানবন্দরের এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল (এটিসি) টাওয়ারের দেয়া ভুল অবতরণ বার্তার জেরে আকাশে অপেক্ষা করতে থাকে বিমানটি। পরে ৬৭ যাত্রী ও চার ক্রুসহ দুপুর ২টা ২০ মিনিটে বিমানটি বিমানবন্দরের পাশের একটি ফুটবল মাঠে বিধ্বস্ত হয়। এতে ৫১ যাত্রীর প্রাণহানি ঘটে। তাদের মধ্যে ২৬ জন বাংলাদেশি।

এআর/জেডএ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :